কমেছে দৌলতদিয়া পয়েন্টে পদ্মার পানি, তবুও বিপৎসীমার ৩৪ সে.মি ওপরে –

রুবেলুর রহমান, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

কমতে শুরু করেছে পদ্মার পানি। গতকালের পর আজও কমেছে রাজবাড়ী গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া পয়েন্টে পদ্মা নদীর পানি। তবে পানি কমার সাথে দেখা দিয়েছে নদী তীরবর্তী বাসিন্দাদের মধ্যে ভাঙ্গন আতঙ্ক।


গত ২৪ ঘন্টায় রাজবাড়ী গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া পয়েন্টে পদ্মার পানি ৯ সে.মি কমে বিপৎসীমার ৩৪ সে.মি ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
এছাড়া সদর উপজেলার মহেন্দ্রপুর ও পাংশার সেনগ্রাম গেজ স্টেশন পয়েন্টে পদ্মা পানি এখনও বিপৎসীমার নিচে রয়েছে।
সোমবার সকাল ৯টার দিকে দৌলতদিয়া পয়েন্টে এ পানির পরিমাপ করেছেন রাজবাড়ী পানি উন্নয়ন বোর্ড।


রাজবাড়ী পানি উন্নয়ন বোর্ড ডাটা এন্ট্রি অপারেটর মোঃ ইউসুফ আলী খান জানান, গত ২৪ ঘন্টায় দৌলতদিয়া পয়েন্টে ৯ সে.মি পানি কমেছে। পানি কমার পরও আজ বিপৎসীমার ৩৪ সে.মি ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তবে পানি আবারও বাড়বে বলে তিনি ধারনা করছেন।
এদিকে জেলার গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ও দেবগ্রামের তিনটি চর এবং কালুখালীর হরিণবাড়ীয়া চরের ফসলি জমিসহ জেলার নদী তীরবর্তী নিচু ফসলি মাঠের পানি নামতে শুরু করায় ওইসব এলাকাবাসীর মধ্যে ভাঙ্গন আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।


নদী তীরবর্তী বাসিন্দারা জানান, নদীর পানি বাড়তে থাকলে ঘর-বাড়ী, ফসল, রাস্তা-ঘাট তলিয়ে মহাবিপদে পড়েন। আর পানি কমতে থাকলে থাকেন ভাঙ্গন আতঙ্কে। পরপর তিন চার দিন পানি বাড়ার পর আজ দুই দিন আবার পানি কমছে। তবে এভাবে তো পানি কমে না, আবারও পানি বাড়বে। পানি বাড়লেও সমস্যা আবার হুট করে কমে গেলেও সমস্যা। তাই ভাঙ্গন রোধে নদীর তীর রক্ষা করলে তাদের ভিটে মাটি ও ফসলি জমি হারানোর ভয় থাকতো না।

জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ সফিকুল ইসলাম জানান, ভাঙ্গন রোধে জেলার বিভিন্নস্থানে জরুরী আপোদকালীন কাজের পাশাপাশি স্থায়ী কাজ করছেন।

(Visited 25 times, 1 visits today)