দৌলতদিয়ার গনি মেম্বার হত্যার ঘটনায় গোয়ালন্দ থানায় মামলা দায়ের –

শামীম শেখ, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম 


রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল গনি মন্ডলকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় শনিবার দুপুরে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।


নিহতের বড় ছেলে মো. আলমগীর হোসেন মন্ডল বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। এতে ৫ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা আরো ১০/১২ জনকে আসামি করা হয়েছে।
এজহারভুক্ত আসামীরা হলেন- দৌলতদিয়া ইউনিয়নের ওমর আলী মোল্লা পাড়ার কাশেম মন্ডলের ছেলে মো. রাজীব মন্ডল (৩২), ২নং বেপারী পাড়ার কাশেম ফকিরের ছেলে কাউছার ফকির (২৯), ওমর আলী মোল্লা পাড়ার কাশেম মন্ডলের ছেলে রহমান মন্ডল (৩৩), লোকমান চেয়ারম্যান পাড়ার আবুল ডাক্তারের ছেলে খাইরুল (২৮) ও গোয়ালন্দ পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের কছিমদ্দিন সরদার পাড়া রেলগেট এলাকার মাইনদ্দীনের ছেলে আলামিন (২৮)।মামলায় ঘটনার একমাত্র প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে বাদী তার ফুফাতো ভাই ইমনের (১৭) নাম উল্লেখ করেছেন।
এজাহারভুক্ত আসামিদের মধ্যে ১ ও ৩ নং আসামি দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রহমান মন্ডলের আপন শ্যালক এবং ২ নং আসামি ভাগ্নে।
গত ১৯ মার্চ রাতে গোয়ালন্দ পৌর এলাকায় চেয়ারম্যান আব্দুর রহমান মন্ডলকে হত্যার উদ্দেশ্যে বর্বরোচিত হামলা চালায় দূর্বৃত্তরা। তিনি গুরুতর অবস্থায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন।ওই মামলায় গনি মন্ডল বা তার কাছের কাউকে আসামি করা হয়নি।আসামিরা অধিকাংশই পৌর এলাকার আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মী।


এদিকে গনি মন্ডল হত্যা মামলার এজাহারে হত্যাকান্ডের সুনির্দিষ্ট কোন কারন উল্লেখ করা না হলেও নিহত গনি মন্ডল সম্প্রতি খুব দুঃচিন্তায় থাকতেন এবং তাকে কেউ ক্ষতি করতে পারে বলে পরিবারের সদস্যদের সাথে আলোচনা করেন বলে উল্লেখ করা হয়েছে।
এজাহারের বর্ণনা অনুযায়ী, গত ৩১ মার্চ বুধবার রাত ১০টার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের পূর্বপাশে সোবাহান মোল্লার চায়ের দোকান থেকে বাড়ি ফিরছিলেন ইউপি সদস্য ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান গনি মন্ডল। এ সময় পূর্ব পরিকল্পিতভাবে মোটর সাইকেল যোগে এসে আসামীরা তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে পালিয়ে যায়।
১ এপ্রিল বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি মারা যান।শুক্রবার জানাযা শেষে তাকে স্হানীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়।


মামলার বিষয়ে গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর জানান, বাদীর দায়েরকৃত এজাহারের ভিত্তিতে এ হত্যা মামলা রুজু করা হয়েছে। আসামীদের গ্রেপ্তার ও হত্যার রহস্য উৎঘাটনে পুলিশ মাঠে নেমেছে। তবে চেয়ারম্যান আব্দুর রহমান মন্ডলের ওপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার সাথে এ হত্যাকান্ডের কোন যোগসূত্র আছে কিনা সেটাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

(Visited 421 times, 1 visits today)