বালিয়াকান্দিতে গৃহবধুকে অপহরণের পর সিগারেটের ছ্যাকা দেওয়ার ঘটনায় থানায় মামলা –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে গৃহবধুকে অপহরন করে শরীরের বিভিন্ন স্থানে সিগারেটের ছ্যাকা দেওয়ার অভিযোগে আদালত মামলা রেকর্ডের জন্য বালিয়াকান্দি থানার ওসিকে নির্দেশ প্রদান করেছে। রবিবার বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যালের বিচারক এ আদেশ দিয়েছেন।


মামলার আসামিরা হলো, জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলার জঙ্গল ইউনিয়নের জঙ্গল গ্রামের বৈদ্যুনাথ মন্ডলের ছেলে প্রহল্লাদ মন্ডল, চাঁদ মোহন মন্ডলের ছেলে আকাশ মন্ডল, মাগুরা জেলার শ্রীপুর উপজেলার লাঙ্গলবাধ বাজারের সাইকেল মেকার দিলীপ বিশ্বাসসহ অজ্ঞাতনামা ২-৩ জন।


ওই গৃহবধু অভিযোগ করে বলেন, ২০০৩ সালে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে সুখে শান্তিতে চলছিল তাদের সংসার। এরমধ্যে তাদের একটি পুত্র সন্তান হয়। ২০১৫ সালের দিকে উপজেলার জঙ্গল ইউনিয়নের জঙ্গল গ্রামের বাসিন্ধা ও গ্রাম পুলিশ কৃষ্ণ পদ মন্ডলের বাড়ীতে স্বামী ও সন্তান (১০) সাথে ভাড়া থেকে বসবাস করছিলাম। প্রহল্লাদ মন্ডল (২২) বিভিন্ন সময় আমাকে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল। আমি তার প্রস্তাবে রাজী না হয়ে স্বামী ও প্রহল্লাদের অভিভাবকদেরকে বিষয়টি অবগত করি। তারা তাকে ধমক শাসন কলে প্রহল্লাদ ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে ক্ষতি সাধন করতে লিপ্ত থাকে।

গত ৪ মার্চ সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার সময় কেউ বাড়ীতে না থাকার সুযোগে প্রহল্লাদ মন্ডল ঘরে ঢুকে অস্ত্রের মুখে ভয় দেখিয়ে আকাশ মন্ডল, দিলীপ বিশ্বাসসহ অজ্ঞাতনামা ২-৩ জন সাদা মাইক্রো বাসে তুলে নিয়ে যায়। উপজেলার বহরপুর ইউনিয়নের তুলশীবরাট গ্রামের গোষ্টর বাড়ীতে আটকে রাখে। সেখান থেকে দু,টি সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেয়। এরপর রাজবাড়ীতে একটি বাড়ীতে আটকে রাখে। এরপর নারায়নগঞ্জের রুপঞ্জ এলাকার একটি বাসায় আটকে রে্েখ প্রহল্লাদের কুপ্রস্তাবে রাজী না হলে সিগারেটের আগুন দিয়ে হাত, পা, বুক, পিটসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে পুড়িয়ে নির্যাতন করাসহ ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষন করে। কৌশলে পালিয়ে বাবার বাড়ীতে থেকে চিকিৎসা নিয়ে কিছুটা সুস্থ হয়ে গত ১৬ জুলাই রাজবাড়ী আদালতে মামলা দায়ের করি। এ কাজে তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা সহযোগিতা করেছে। কৌশলে পালিয়ে আসলেও এসে আর স্বামী-সন্তানকে খুজে পাচ্ছি না। তাদের কি কোন ক্ষতি করেছে কিনা এখন শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

(Visited 67 times, 1 visits today)