উচ্চ পর্যায়ের নিরিক্ষার উপর নির্ভর করছে রাজবাড়ীর পদ্মা থেকে বালু উত্তোলনের ভবিষ্যৎ –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

পানি উন্নয়ন বোর্ডের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দল পরীক্ষা-নিরিক্ষা শেষে শুধুমাত্র বালু উত্তোলন করার পক্ষে মতামত দিলেই ভবিষ্যতে তা উত্তোলন করার অনুমতি দেয়া হবে। আর তা না হলে পদ্মা নদী থেকে বালু উত্তোলন বন্ধ করা হবে। সেই সাথে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধেও আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। গত সোমবার রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা বালু মহল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই সভা শেষে রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম এ সব তথ্য জানিয়েছেন।
জেলা প্রশাসক আরো জানান, রাজবাড়ীতে ৬টা বালু মহল ইজারা দেয়া হয়। এর মধ্যে ফুরশার হাট বালুমলটিতে বালু উত্তোলন করা যায়না বলে তা বন্ধ আছে। বাকি ৫টা বালু মহল এক সনা ইজারা দেয়া আছে। প্রতি বছরের ১ বৈশাখ থেকে ৩০ চৈত্র পর্যন্ত এ সব বালু মহল ইজারা দেয়া হয়। তবে জেলা বালু মহল ব্যবস্থাপনা কমিটির অন্যতম সদস্য, রাজবাড়ী সদর উপজেলার চর জাজিরা, চর সিংহদিয়া ও চর পদ্মা বালু মহল ইজারা প্রদান না করতে সাবেক শিক্ষাপ্রতিমন্ত্রী ও রাজবাড়ী-১ আসনের এমপি কাজী কেরামত আলী অনুরোধ জানিয়েছেন। তার দাবী পদ্মা নদী থেকে বালু উত্তোলনের ফলে সদর উপজেলার নদীর তীরবর্তী এলাকার হাজার হাজার একর জমি, ঘর-বাড়ী, স্কুল, মসজিদসহ নানা প্রতিষ্ঠান নদী গর্ভে বিলিন হয়ে গেছে। বালু উত্তোলন বন্ধ করা না হলে নদী ভাঙ্গন অব্যাহত থাকবে।
এ প্রসঙ্গে সাবেক শিক্ষাপ্রতিমন্ত্রী ও রাজবাড়ী-১ আসনের এমপি কাজী কেরামত আলী জানান, সাম্প্রতি রাজবাড়ী জেলা পানিউন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী এক প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। যে প্রতিবেদনে রাজবাড়ীর হাজার হাজার একর জমি, ঘর-বাড়ী, স্কুল, মসজিদসহ নানা প্রতিষ্ঠান নদী গর্ভে বিলিন হবার তথ্য তুলে ধরা হয়নি। আর এই তথ্য গোপন করার বিষয়টি তিনি তুলে ধরেছেন। যার প্রেক্ষিতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দল বালু উত্তোলন করা যাবে কিনা তা পরীক্ষা-নিরিক্ষা করবেন।

(Visited 533 times, 1 visits today)