সোনার বাংলা সমাজ কল্যাণ ও ক্রীড়া সংসদ সদস্যদের অন্যরকম ঈদ আনন্দ ! –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার বহরপুর-রামদিয়া রাস্তাটি দীর্ঘ দিন ধরে খানাখন্দে ভরপুর। মানুষ চলাচলে দূর্ভোগ নিত্যদিনের। যে প্রতিষ্ঠানের দেখভালো করার কথা এ সড়কটি, তারাও নিয়মিত যাতায়াত করেন। তবে হচ্ছিলনা সড়ক সংস্কার। ফলে ঈদ ঘরে ফেরা মানুষের দূর্ভোগ কমাতে ইট, বালু, হাতুরী তুলে নেন একদল যুবক। স্বেচ্ছা শ্রমের ভিত্তিতে তারা রাস্তার সবচেয় বড় গর্তটি সংস্কার করেন। সেখান দিয়ে এখন মানুষ চলাচল করছেন নিবিঘেœ।
জানাগেছে, ওই সড়কটি অত্যান্ত ব্যস্ত সড়ক। সড়কের বহরপুর বাজারের ডাঃ আফজাল হোসেন মার্কেটের সামনে বড় আকারের গর্তের সৃষ্টি হয়। আর বৃষ্টিতে ওই গর্ত পানি ঢেউ খেলে। যানবাহন ও সাধারণ জনগনের চলাচল হয়ে ওঠে তখন বিপদ জনক। এ অবস্থায় এগিয়ে আসে স্থানীয় “সোনার বাংলা সমাজ কল্যাণ ও ক্রীড়া সংসদ”-এর সদস্যরা। তারা স্ব উদ্যোগে ইট, বালু ও হাতুরী সংগ্রহ করে দিনভার স্বেচ্ছা শ্রমের মাধ্যমে ওই গর্ত ভরাট করে।
স্থানীয় বাসিন্দা সাইদুজ্জামান বলেন, মাঝে মধ্যেই রাস্তার এ গর্তে ছোট খাট দূর্ঘটনা ঘটতো। বৃষ্টির সভায় পানিতে পূর্ণ হওয়ায় যান ও মানুষ চলাচলে দূর্ভোগের শেষ ছিলো না। সোনার বাংলা সমাজ কল্যাণ ও ক্রীড়া সংসদেও সদস্যরা তাদের ওই দূর্ভোগ থেকে রক্ষা করলো। এখন আর তাদের দূর্ভোগ পোহাতে হবে না।
সোনার বাংলা সমাজ কল্যাণ ও ক্রীড়া সংসদের আহবায়ক এস,এম হেলাল খন্দকার জানান, রাস্তাটি এলজিইডি’র। এ রাস্তা দিয়ে প্রায় প্রতিদিনই আসা যাওয়া করেন বালিয়াকান্দি উপজেলা এলজিইডি’র উপসহকারী প্রকৌশলী সজল কুমার দত্ত। তিনিও হন দূর্ভোগের শিকার। তবে নেন না এ সড়কটি সংস্কারের উদ্যোগ। অথচ ঈদেকে সামনে রেখে হাজারো যানবাহন ও ঘরমুখো মানুষ করবে এ চলক দিয়ে চলাচল। ফলে তারা গর্ত ভরাট ও সড়কটি সংস্কারের উদ্যোগ নেন। যার অংশ হিসেবে গতকাল শুক্রবার তিনিসহ সংগঠনের গোলাম মোস্তফা লাল, প্রকাশ, বিদ্যুৎ, কুটি, মোহাম্মাদ খাঁ, অনিক ও অন্যান্য সদস্যরা সম্মিলিত ভাবে ইট,বালু ও হাতুরী সংগ্রহণ করে কাজটি সম্পূর্ণ করেন।

(Visited 32 times, 1 visits today)