‘খুব বিপাকের মধ্যে আছিরে ভাই’…

গণেশ পাল :

‘তিন দিন ধইরা ঘাটে গাড়ি নিয়া আইটকা আছি। অহোনও ফেরির সিরিয়াল পাই নাই। কবে নদী পারহমু তাও কইবার পারতাছি না। এদিকে খাওনের ট্যাকাও ফুরায় আইছে। তাই খুব বিপাকের মধ্যে আছিরে ভাই।’ কথাগুলো ঢাকার মীরপুর এলাকার ট্রাকচালক রশিদ শেখের। গত বৃহস্পতিবার সকালে চুয়াডাঙ্গা থেকে কাঠবোঝাই ট্রাক নিয়ে তিনি দৌলতদিয়া ঘাটে এসে পৌছান। তখন থেকে তার ট্রাকটি সিরিয়ালে আটকা পড়ে আছে। গতকাল রবিবার দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত ট্রাকটি ফেরির নাগাল পায়নি। রশিদ শেখের মতো দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে নদীপার হতে আসা বিভিন্ন মালামাল বোঝাই অনেক ট্রাক আটকা পড়ে আছে। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ফেরিস্বল্পতার পাশাপাশি নদীতে প্রবল ¯্রােত ও ডুবোচরের কারণে যানবাহন পারাপার ব্যাহত হওয়ায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।
বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থার (বিআইডব্লি¬উটিসি) দৌলতদিয়া ও পাটুরিয়াঘাট অফিস সুত্রে জানা যায়, দেশের ব্যস্ততম এই নৌপথে চলাচলকারি ফেরিগুলো অনেক বছরের পুরনো। এ কারণে সার্বক্ষণিক সচল রাখতে গিয়ে সেগুলো ঘন ঘন বিকল হয়ে পড়ছে। গত শনিবার সকালে ফেরি বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান, দুপুরে শাহ পরান ফেরিতে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দিলে তা বিকল হয়ে পড়ে। পাশাপাশি যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে কাবেরী ও কপোতী নামের অপর দুটি কে-টাইপ ফেরি গত ছয় দিন যাবত বিকল হয়ে আছে। পাটুরিয়ার ভাসমান কারখানা মধুমতিতে বিকল ওই ফেরিগুলোর মেরামত কাজ চলছে। এদিকে বড় ধরনের যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেওয়ায় বেশ কিছুদিন যাবত ফেরি শাহ মখদুমকে মেরামত কাজের জন্য নারায়নগঞ্জ ডকইয়ার্ডে পাঠানো হয়েছে। প্রায় প্রতিদিন কোন না কোন ফেরি বিকল হওয়ার ফলে গুরুত্বপূর্ণ এই নৌরুটে ফেরির সংকট সহসা কাটছে না। বিআইডাব্লিউটিসির দৌলতদিয়াঘাট ম্যানেজার মো. শফিকুল ইসলাম জানান, ফেরিসংকটের পাশাপাশি এই নৌচ্যানেলে অসংখ্য ডুবোচর সৃষ্টি হয়েছে। এতে অনেক ফেরি প্রায়ই ডুবোচরে গিয়ে আটকা পড়ছে। গত শনিবার বিকেলে ৯টি বাস, একটি ট্রাক ও ১০টি ছোটগাড়িসহ কয়েক শ যাত্রীবোঝাই ফেরি বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীর নৌপথের দৌলতদিয়া চ্যানেলে ডুবোচরে আটকে যায়। টানা দেড় ঘন্টা আটকে থাকার পর আইটি-৩৮৯ জাহাজ এসে ফেরিটিকে উদ্ধার করে। নদীতে প্রবল ¯্রােত বইতে থাকায় চলাচলকারি ফেরিগুলো এখন স্বাভাবিক গতিতে চলতে পারছে না বলেও তিনি জানান।

গত রবিবার দুপুরে দৌলতদিয়াঘাট সরেজমিন গিয়ে সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ফেরিস্বল্পতার পাশাপাশি দূরপাল্লার বিভিন্ন যাত্রীবাহি বাস, মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকারগুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পারাপার করায় গত কয়েক দিন যাবত দৌলতদিয়াঘাটে নদীপারের অপেক্ষায় কয়েক শ ট্রাক আটকা পড়ে আছে। সামান্য এই নদীপথ পাড়ি দিতে এসে দিনের পর দিন ঘাটে আটকে থাকায় বিভিন্ন ট্রাকের চালক এসময় দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন।

বিআইডাব্লি¬উটিসির এজিএম মো. জিল্লুর রহমান সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘বিকল ফেরিগুলোর দ্রুত মেরামত কাজ চলছে। ফেরিগুলো নৌরুটে ফিরে এলে পরিস্থিতি অনেকটা স্বাভাবিক হয়ে যাবে।’

(Visited 29 times, 1 visits today)