পদ্মা থেকে জেলেরা ফিরছে খালি হাতে, ইলিশ খ্যাত গোয়ালন্দে ভরা মৌসুমে ইলিশ নেই

আজু শিকদার :

Goalundo Photo 2 (8-8) copy

ইলিশের জন্য বিখ্যাত গোয়ালন্দে ইলিশের সেই সুদিন আর নেই। ইলিশের এ ভরা মৌসুমে পদ্মার দৌলতদিয়া পয়েন্টে ইলিশের খুব একটা দেখা মিলছে না। জেলেরা জাল ফেলে দিন রাত চেষ্টার পরও যা পাওয়া যাচ্ছে তার আকারও অত্যন্ত ছোট। এতেকরে মহাজনদের কাছ থেকে দাদন নেওয়া জেলেরা চরম বিপাকে পড়েছেন।
এক সময় গোয়ালন্দ থেকে প্রতিদিন বিপুল পরিমান ইলিশ দেশের চাহিদা মিটিয়ে ভারতসহ পৃথিবী বিভিন্ন দেশের রপ্তানি হত। এখন গোয়ালন্দ বাসীই ইলিশের স্বাদ ভূলতে বসেছে। পদ্মা নদীতে সারা বছরই কম বেশি ইলিশ পাওয়া গেলেও বিগত কয়েক বছর ধরে ইলিশের ভরা মৌসুমেও এই এলাকায় খুব একটা ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে না। ভরা মৌসুমে নদীতে মাছ না পেয়ে জেলেরা ফিরে আসছে খালি হাতে। ফলে ঋণ নিয়ে জাল ও নৌকা মেরামতের টাকা পরিশোধের চিন্তায় জেলেদের মাঝে হতাশা বিরাজ করছে। এদিকে জাল ও নৌকা মেরামতের জন্য দাদন দিয়েও আড়তদাররা ভাবনায় পড়েছেন। কারণ মোটা অঙ্কের টাকা ঋণ (দাদন) নিয়ে জেলেরা মাছ দিতে পারছে বলে জানান একাধিক আড়তদার ।
দীর্ঘদিন আগে থেকেই গোয়ালন্দের কাছে পদ্মা নদীর ইলিশ বিক্রির জন্য গড়ে উঠেছে একাধিক আড়ত। গোয়ালন্দ বাজার ও দৌলতদিয়া ঘাটের ইলিশের আড়ত ঘুরে দেখা গেছে মৌসুম শুরু হলেও ইলিশের তেমন আমদানী নেই।
দৌলতদিয়া ঘাটের ইলিশের পাইকারী বিক্রেতা মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, দৌলতদিয়ার কাছে পদ্মা নদীতে শত শত জেলে জাল ফেলে মাছ না পেয়ে খালি হাতে ফিরে আসছে। বিভিন্ন সময় ইলিশ ধরা বন্ধ থাকাকালীন আড়তদারদের কাছ থেকে ঋণ নিয়ে জেলেরা পড়েছেন বিপদে।
ভরা মৌসুমেও মাছ না পাওয়ার কারণ জানতে চাইলে দৌলতদিয়ায় ইলিশ শিকারি মানিকগঞ্জ জেলার জাফরগঞ্জ এলাকার নিরঞ্জন হালদার (৫০), গোয়ালন্দ উপজেলার বেথুর এলাকার অহেদ মন্ডল (৬০) সহ অনেকেই বলেন, ইলিশের জন্য নানা রকম প্রতিকুলতা ও ফসল উৎপাদনে ব্যবহৃত কীটনাশক বৃষ্টির পানিতে ধুয়ে নদীতে পরায় ইলিশের ডিম নষ্ট হয়ে ইলিশ বিস্তার ব্যহত হচ্ছে। তাছাড়া পদ্মা-যমুনায় সৃষ্ট অসংখ্য ডুবাচরের কারণে ইলিশ মাছ সাগর থেকে নদীতে আসার পথে বাধা প্রাপ্ত হয়ে আবার সাগরে ফিরে যাচ্ছে। তাছাড়া দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয় জেলেদের কারেন্ট জাল দিয়ে জাটকা নিধনের কারণেও এখন আর আগের মত ইলিশ পাওয়া যাচ্ছেনা।

(Visited 83 times, 1 visits today)