বালিয়াকান্দিতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুর ঘটনা ভিন্ন খাতে নেওয়ার চেষ্টা

সোহেল রানা/জাহিদুর রহিম

SAM-01

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি হাসপাতালে পরিবার পরিকল্পনা দপ্তরের দালালদের মাধ্যমে এক ব্যাক্তিকে লাইগেশন করার পর তিনি অসুস্থ হয়ে পরলে বৃহস্পতিবার তাকে বালিয়াকান্দি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থা অবনতি হলে তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার সকালে মারা গেছেন রথীন মন্ডল ওরফে পাগল রথীন (২৭) নামের ওই ব্যাক্তি। তার পিতার নাম রামপদ মন্ডল। বাড়ী উপজেলার জঙ্গল ইউনিয়নের জঙ্গল ঠাচাপাড়া গ্রামে। এঘটনা ভিন্ন খাতে নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে স্বাস্থ্য সহকারী মমতাজ সরকার ও দালাল রনজিৎ।

বালিয়াকান্দি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকাবস্থায় রথীন মন্ডল জানায়, এক বছর পুর্বে রনজিৎ দালালের মাধ্যমে তার স্ত্রী আমদানী মন্ডলকে স্থানীয় স্বাস্থ্যকর্মীর মমতাজ সরকার মাধ্যমে বালিয়াকান্দি হাসপাতালে লাইগেশন করানো হয়। গত ৮ ডিসেম্বর বালিয়াকান্দি হাসপাতালে এনে তাকেও লাইগেশন করানো হয়। তাকে ১ হাজার টাকা দিলেও দালাল রনজিৎ তার কাছ থেকে টাকা নিয়ে যায়। লাইগেশনের ফলে অসুস্থ হয়ে পড়লে স্থানীয় পল্লী চিকিৎসককে দেখায়। সে হাসপাতালে ভর্তি হতে বললে ভর্তি না হয়ে বাড়ীতে থাকে। এখন বেশি অসুস্থ হয়ে পড়ার ফলে বৃহস্পতিবার তাকে বালিয়াকান্দি হাসপাতালে ভর্তি করা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ফরিদপুর হাসপাতালে প্রেরন করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য সহকারী মমতাজ সরকারের মুঠোফোন যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, লাইগেশনের ফলে মৃত্যু হয়নি। সে গ্যাসট্রিকের সমস্যা বেড়েছিলো। মৃত রথীন মন্ডলকে তড়িঘড়ি করে স্থানীয় শ্মশানে দাহ করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, হাসপাতালে লাইগেশনকে ঘিরে দালাল চক্র সক্রিয় হয়ে উঠেছে। ইতিপুর্বে এনিয়ে অনেক তুলকালাম কান্ডও ঘটেছে। এলাকাবাসী দালাল চক্র চিহিৃত করে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানিয়েছেন।

(Visited 37 times, 1 visits today)