পাংশায় গৃহবধুকে গণধর্ষণের অভিযোগে মামলা

স্টাফ রিপোর্টার :

রাজবাড়ী পাংশায় এক গৃহবধুকে বাড়ী থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনার পর পরই ওই গৃহবধুকে পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ অভিযোগে ওই গৃহবধু’র স্বামী বাদী হয়ে গত রবিবার সকালে ৩ জন ধর্ষকের বিরুদ্ধে পাংশা থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।
পাংশা হাসপাতালে ভর্তি থাকা ওই গৃহবধু (২০) বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাতে তার দিন মজুর স্বামী বাড়ীতে ছিলেন না। ওই দিন রাত ১১ টার দিকে তিনি প্রাকৃতিক ডাকা সাড়া দিতে ঘরের বাইরে বের হন। এ সময় জেলার পাংশা উপজেলার কলিমহর ইউনিয়নের বড়বাংলাট গ্রামের হালিম মন্ডলের ছেলে নান্নু মন্ডল (২২), গফুর মন্ডলের ছেলে মুক্তি মন্ডল (৩৫) ও আক্কাস মন্ডলের ছেলে ইমরান মন্ডল (২২) তাদের বাড়ীতে প্রবেশ করে এবং তার মুখ বেঁধে জোরপূর্বক পাশে থাকা ফাঁকা মাঠের মধ্যে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করে। তাদের অমানুষিক নির্যাতনের কারণে তিনি সে সময় জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। ভোর রাতে তার জ্ঞান ফিরে আসলে তিনি অসুস্থ্য অবস্থায় বাড়ীতে ফিরে আসেন। সে সময় এলাকার বাসীন্দারা ঘটনাটি জানার পর তাকে নান্নু মন্ডলের বাড়ীতে নিয়ে যায়। তবে নান্নু মন্ডলের পরিবারের সদস্যরা ওই ঘটনার প্রতিকারের উদ্যোগ না নিয়ে উল্টা তাকেই মারপিট করে। পরে তাকে পাংশা উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
পাংশা হাসপাতালে চিকিৎসক সন্দিপ ভৌমিক জানান, ওই গৃহবধু সেক্সওয়াল এ্যাসাল্ড হয়েছেন। তবে মেডিকেল পরীক্ষার পর বিষয়টি আরো বেশি নিশ্চিত ভাবে বলা সম্ভব হবে।
গৃহবধুর স্বামী বলেন, এ সংক্রান্ত একটি অভিযোগপত্র ঘটনার পর দিনই পাংশা থানায় প্রদান করা হয়। তবে অজ্ঞাত কারণে পুলিশ ধর্ষকদের গতকাল বিকাল পর্যন্তও গ্রেপ্তার করেনি।
পাংশা থানার ওসি আবুল বাশার জানান, ওই গৃহবধু’র স্বামীর দাখিলকৃত অভিযোগপত্রটি তদন্তের পর গতকাল সকালে তা মামলা হিসেবে থানায় রেকর্ড করা হয়েছে। আসামীরা পলাতক থাকায় তাদের গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। তবে তাদের গ্রেপ্তার করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

(Visited 22 times, 1 visits today)