গোয়ালন্দ পৌরসভার ‘রাজকোষ’ শূণ্য

গণেশ পাল :

37-DSC00124

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ পৌরসভার সকল কর্মকর্তা-কর্মচারি গত তিন মাস যাবত বেতন ভাতা পাচ্ছেন না। এতে কর্মরত পৌরকর্মকর্তা-কর্মচারিরা মহা বিপাকে পড়েছেন। বেতনের টাকা না পেয়ে তাদের অনেকে এখন পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর দিন কাটাচ্ছেন। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তহবিল সংকটের কারণে এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।
জানা গেছে, গোয়ালন্দ পৌরসভায় বর্তমান ৭০ জন কর্মকর্তা ও কর্মচারি রয়েছেন। এর মধ্যে ৩২ জন নিয়মিত এবং ৩৮ জন অনিয়মিত (মাস্টার রোল)। পৌরসভার রাজস্ব তহবিল থেকে প্রতি মাসে তাদের বেতন-ভাতা পরিশোধ করা হয়ে থাকে। অথচ গত সেপ্টম্বর মাস থেকে তাদের সকলের বেতন ভাতা বন্ধ হয়ে আছে। এদিকে বেতন না পাওয়ায় সাধারণ কর্মচারিদের অনেকেই তাদের পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর দিন কাটাচ্ছেন। পৌরসভার একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, গোয়ালন্দ পৌরসভার রাজকোষ শূণ্য হয়ে আছে। এ কারণে বেতনভাতা না পেয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারিদের অনেকেই আর আগের মতো নিয়মিত অফিসে আসছেন না। এতে কাজের গতি কমে যাওয়ায় পৌরসভার দৈনন্দিন কর্মকান্ডে অনেকটা স্থবিরতার সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে পরিচ্ছন্ন কর্মীরা (সুইপার) নিয়মিত কাজ না করায় গোয়ালন্দ পৌরশহর এলাকা দিন দিন নোংরা আবর্জনায় ভরে উঠছে। পৌর ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কোমল কুমার সাহা জানান, বেতন-ভাতা না পাওয়ায় ২৪ সুইপারসহ পৌরসভার সাধারণ কর্মচারিরা সবচেয়ে বিপাকে পড়েছেন। তাদের অনেকে এখন ধারদেনা করে নিজ সংসার চালাচ্ছেন।
এ ব্যাপারে গোয়ালন্দ পৌরসভার মেয়র শেখ মো. নিজাম বলেন, ‘পৌর এলাকায় অবস্থিত সরকারি-বেসরকারি অনেক প্রতিষ্ঠানের কাছে মোটা অঙ্কের পৌরকর পাওনা রয়েছে। সেগুলো আশানুরুপ আদায় না হওয়ায় পৌরসভায় তহবিল সংকট দেখা দিয়েছে।’ তবে আগামী দুই মাস পর স্থানীয় হাট-বাজার ইজারা বাবদ যে টাকা পাওয়া যাবে তা থেকে পৌরকর্মকর্তা-কর্মচারিদের বকেয়া বেতনভাতা পরিশোধ করা হবে বলে জানান মেয়র।

(Visited 22 times, 1 visits today)