ইসলামপুরে স্বামী পরিত্যক্তা মহিলাকে ভিটে থেকে উচ্ছেদের চেষ্টা

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের রাজধরপুর গ্রামে এক স্বামী পরিত্যক্তা মহিলাকে ভিটে থেকে উচ্ছেদের চেষ্টা চালাচ্ছে প্রভাবশালীরা। তার জমি থেকে জোড়পুর্বক গাছ কর্তনে বাধা দেওয়ায় পিটিয়ে আহত করে। আদালতে মামলা করায় মামলা তুলে নিতে অব্যাহত ভাবে হুমকি দিচ্ছে আসামীরা।

জানাগেছে, উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের রাজধরপুর গ্রামের আছিরুদ্দিন বিশ্বাসের কন্যা স্বামী পত্যিক্তা মাজেদা বেগম( ৪৫)  প্রায় ৩০ বছর ধরে পিতার বাড়ীতে বসবাস করে আসছেন। অসহায় ও গরীব হওয়ার কারণে একটি প্রভাবশালী পরিবার তাকে উচ্ছেদ করতে দীর্ঘদিন যাবৎ নানা ভাবে ষড়যন্ত্র করে আসছে। ২০১২ সালের ২৭ জুলাই এ বিরোধের জের ধরে রাজধরপুর গ্রামের আয়েত আলীর পুত্র মজিবর বিশ্বাস, রফিক বিশ্বাস, জহুরুল বিশ্বাস, মজিবর বিশ্বাসের স্ত্রী বেলী বেগম মিলে বসত ঘরে অগ্নিসংযোগ করে ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে। ওই সময়ে স্বামী পরিত্যক্তা মাজেদা বেগমের বড় ভাই আজিজ বিশ্বাসের স্ত্রী ছাহেরা বেগম বাদী হয়ে রাজবাড়ী র‌্যাব ক্যাম্পে অভিযোগ দিলে টের পেয়ে আপোষ মিমাংসা করতে বাধ্য করে। গত ২জুন সকাল ১০টার দিকে আয়াত আয়েত আলী বিশ্বাসের পুত্র জহুরুল ইসলাম ওরফে কেদাই, রফিক বিশ্বাস, লুৎফর বিশ্বাস মিলে বাড়ীর গাছ পালা কাটতে শুরু করে। এদিন স্বামী পরিত্যক্তা মাজেদা বেগমের পুত্র সাগর বিশ্বাস, ভাই খাতের বিশ্বাস, আজিজ বিশ্বাস বাড়ীতে না থাকার কারণে নিজেই গিয়ে গাছ কাটতে বাধা দেয়। প্রভাবশালী চক্র মাজেদা বেগম ও ভাইয়ের স্ত্রী রিনা বেগমকে বেধড়ক ভাবে মারপিট করে আহত করে। আহত মাজেদা বেগমকে বালিয়াকান্দি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এব্যাপারে ২৫ জুন মাজেদা বেগম বাদী হয়ে জহুরুল বিশ্বাস, রফিক বিশ্বাস ও লুৎফর বিশ্বাসকে আসামী করে রাজবাড়ী ১নং আমলী আদালতে মিসপি-১৯৩/১৪ মামলা দায়ের করেন। আসামীদের হুমকি ও স্ত্রী এবং বোনের মারপিটের অভিযোগ এনে মাজেদা বেগমের ভাই খাতের আলী বিশ্বাস বাদী হয়ে জহুরুল বিশ্বাস, রফিক বিশ্বাস, লুৎফর বিশ্বাস, মজিবর বিশ্বাস, মনাক্কা বেগমকে আসামী করে  রাজবাড়ী ১নং আমলী আদালতে মামলা দায়ের করে। মামলাটি বালিয়াকান্দি উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তাকে তদন্তপুর্বক আদালতে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।

মাজেদা বেগম জানান, তাকে ও ভাইদের ভিটে ছাড়া করতে একই গ্রামের রফিক বিশ্বাস, কেদাই বিশ্বাস, লুৎফর বিশ্বাসসহ তার সাঙ্গপাঙ্গরা মামলা করার পর মামলা তুলে নিতে অব্যাহত ভাবে হুমকি প্রদর্শন করছে। শুধু হুমকি দিয়েই বসে থাকেনি জহুরুল বিশ্বাসের স্ত্রী শিউলী আক্তারকে দিয়ে উল্টো আমার, পুত্র, ভাইদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়েছে। মামলায় ফাঁসার ভয়ে মামলা তুলে নিতে বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিচ্ছে। মামলা তুলে না নিলে বিভিন্ন মিথ্যা মামলা দিয়ে ফাঁসানো হবে বলে প্রকাশ করছে। আমি সুষ্টু বিচারের দাবী জানাই।

(Visited 24 times, 1 visits today)