বালিয়াকান্দিতে পূজা কমিটির পরিচিতি সভায় হামলার ঘটনায় থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক :

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি ডিগ্রী কলেজে শুক্রবার বিকালে উপজেলা পূজা উৎযাপন পরিষদের পরিচিতি সভায় প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে হামলার ঘটনায় রাতে থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। শনিবার দিনভর এনিয়ে বালিয়াকান্দিতে উত্তেজনা বিরাজ করছে।
উপজেলা পূজা উৎযাপন পরিষদের সভাপতি বিনয় কুমার চক্রবর্তী জানান,পুজা উৎযাপন পরিষদের সভায় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুল হাসান, উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল হান্নান মাষ্টার, থানার এস,আই ইলিয়াচ হোসেন, জেলা পুজা উৎযাপন কমিটির সহ-সভাপতি রাম গোপাল চট্রোপাধ্যায়, সাংগঠনিক সম্পাদক স্বপন কুমার দাস, উপদেষ্টা পুলক কুমার লাহিড়ী প্রমুখ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন। পরিচিতি সভা শুরুর পর পরিচয়পর্ব শেষ হওয়ার পুর্বেই কমিটির সাবেক সভাপতি রঘুনন্দন সিকদার, সম্পাদক সুজিত সাহা, ভানু পদ সোমের নেতৃত্বে অর্ধশত যুবকদের সাথে নিয়ে সভাস্থলে উপস্থিত হয়ে তাদের অভিযোগ তাদেরকে বাদ রেখে কমিটি করা হয়েছে। একপর্যায়ে সভা পরিচালনায় উপজেলা পুজা উৎযাপন পরিষদের সহ-সভাপতি বিধান চন্দ্র ঘোষের হাত থেকে সুজিত সাহা মাইক্রোফোন নিয়ে উত্তেজনাকর বক্তব্য দিলে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। কলেজ শিক্ষক মিলনায়তনে হট্রগোল ও হাতাহাতির একপর্যায়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুল হাসানের নির্দেশে সভা স্থগিত ঘোষনা করা হয়। উভয়পক্ষকে ডেকে আপোষ মিমাংসা করার জন্য রবিবার দিন ধার্য্য করেন। পরবর্তীতে তার নির্দেশ মোতাবেক সকলেই সভাস্থল ত্যাগ করে। রাম গোপাল চ্যাটার্জী, তার ছেলে গিরিধারী চ্যাটার্জী ও ভাতিজা অলোক চক্রবর্তীকে সাথে নিয়ে মোটর সাইকেল যোগে বাসষ্ট্যান্ড অতিক্রান্ত করার সময় সুজিত সাহা, ভানু পদ সোমের নেতৃত্বে লাঠি দিয়ে মারপিট করে রক্তাক্ত জখম করে।
সাবেক সম্পাদক ও বর্তমান কমিটি উপদেষ্টা সুজিত কুমার সাহা জানান, পুজা উদযাপন পরিষদের পরিচিতি সভায় গিয়ে নতুন কমিটি কবে কোথায় কিভাবে গঠিত হয় তা আমি জানি না। এ বিষয়ে কিভাবে কমিটি গঠন হলো এবং উপদেষ্টা হলাম সে বিষয়ে হাউজে প্রশ্ন করলে, রাম গোপাল চট্টপাধ্যায় আমার কথা বলেতে বাধা সৃষ্টি করে। তার অনুগত ১০/১৫ জন মাইক্রোফোন কেড়ে নিয়ে ধাক্কা দিয়ে ফেলে মারপিট ও লাঞ্ছিত করে। এরপর আমি ঘটনাস্থল বালিয়াকান্দি কলেজ থেকে চলে আসি। দিপক কুমার রায়, বিজয় সান্যাল ও রাজু দাস সহ ৩/৪ জন বেধড়ক মারপিট করে। মারপিটে আমরা ৩ জন আহত হই।
থানার এস,আই ইলিয়াস হোসেন জানান, থানায় পৃথক ২টি অভিযোগ দায়ের করেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

(Visited 28 times, 1 visits today)