রাজবাড়ীতে চিকিৎসকের শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

Unt000itled-1

রাজবাড়ীতে ভুল অপরেশনে এক রোগী মৃত্যুর ঘটনায় আজ শনিবার বিকালে সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ এস এম এ হান্নানের বিচারের দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়েছে। এর আগে গত ১৩ এপ্রিল রাজবাড়ীর ১নং আমলী আদালতে ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছিল। আদালত রাজবাড়ী থানার ওসিকে ঘটনাটি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। মৃত রোগীর নাম কুমার বিশ্বজিৎ রায় (৫০)। সে জেলা শহরের বিনোদপুর নিউকলোনীর মৃত অনিল কুমার রায়ের ছেলে।
বিকাল ৫ টা থেকে সাড়ে ৬ টা পর্যন্ত জেলা শহরের শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি চত্বরে ওই মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। এ কর্মসূচী চলাকালে রাজবাড়ী পৌরসভার মেয়র মহম্মদ আলী চৌধুরী, জেলা ওয়াকার্স পার্টির সভাপতি জ্যোতি শংকর ঝন্টু, সাধারণ সম্পাদক এডঃ রেজাউল করিম রেজা, জেলা বারের সাধারণ সম্পাদক এড: কেএ বারী, জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক মনিরুল হক প্রমুখ বক্তৃতা করেন।
মামলার বাদী এডঃ বিপ্লব কুমার রায় বলেন, তার বড় ভাই কুমার বিশ্বজিৎ রায় অন্ডকোষের হার্নিয়া রোগে আক্রান্ত হয়। তাকে গত ৮ এপ্রিল রাতে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ভর্তির পর উন্নত চিকিৎসার কথা বলে ওই হাসপাতালের পাশে থাকা “রাজবাড়ী মেডিকেল সেন্টার” নামের একটি ক্লিনিকে নিয়ে যাওয়া হয়। পর দিন ওই ক্লিনিকে মোটা অংকের টাকার চুক্তিতে সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ এস এম এ হান্নান দীর্ঘ সময় ধরে তার ভাই কুমার বিশ্বজিতের অপারেশন করেন। এর পর রোগীর অবস্থার অবনতি হয় এবং বার বার ডাকার পরও ডাঃ হান্নান তার ভাইকে দেখতে আসেননি। বরং অবস্থার অবনতি হলে গুরুতর অবস্থায় তার ভাইকে রাজধানী ঢাকায় নেয়ার পরামর্শ দেন। এর পর দিন বিকালে তার ভাইকে রাজধানী ঢাকায় নেবার উদ্দেশ্যে এ্যাম্বুলেন্স যোগে দৌলতদিয়া ফেরী ঘাট এলাকায় নেয়া হলে সে নিস্তেজ হয়ে যায়। ওই অবস্থায় গোয়ালন্দ হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষনা করেন। মূলত ডাঃ হান্নান একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক না হয়েও নিজেকে ‘সার্জন’ হিসেবে পরিচয় দিয়ে অনভিজ্ঞের মত তার ভাইয়ের ভুল অপারেশনের মাধ্যমে মৃত্যু ঘটিয়েছেন। যে কারণে তিনি আদালতে ওই ডাক্তারকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছেন।
এ ব্যাপারে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ এস এম এ হান্নান জানান, তিনি এবং সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ রহিম বক্স্র রোগী কুমার বিশ্বজিৎ রায়ের অন্ডকোষের হার্নিয়া অপারেশন করেছেন। তিনি আরো জানান, ওই রোগীর ইতোপূর্বে আরো দুই বার হার্নিয়া অপারেশন করা হয়েছিল। ফলে রোগীর অবস্থা আগে থেকেই খারাপ ছিল। তার পেটের নাড়ি কালচে আকার ধার করায় অবস্থা অনেকটাই সংকটাপন্না ছিল। বিষয়টি মামলার বাদী ও তার অপর এক ভাইকে অপারেশন থিয়েটারের মধ্যে ডেকে নিয়ে দেখানো হয়েছে। অপারেশনের পর রোগী অনেকটা ভাল থাকালেও হঠাৎ করেই তার প্রেসার কমতে শুরু করে। এক পর্যায়ে রাজধানী ঢাকায় তাকে রেফার্ড করা হয়।

(Visited 444 times, 1 visits today)