অনন্য নজির, গোয়ালন্দ ব্লাড ডোনার ক্লাব এবার অজ্ঞাত ব্যাক্তির চিকিৎসা ও লাশ দাফন করলো –


শামীম শেখ , রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :


রাস্তায় পড়ে থেকে অসুস্থ্য অবস্থায় কাতরাচ্ছিল অজ্ঞাত পরিচয়ধারী মানসিক ভারসাম্যহীন লোকটি (৪০)।
১০ দিন আগে তাকে রাস্তা থেকে তুলে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন সামাজিক সংগঠন গোয়ালন্দ ব্লাড ডোনার ক্লাবের কর্মীরা। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। লোকটা  বুধবার (০৮সেপ্টেম্বর) দুপুরে মারা যায়।
 তবে লাশের কোন স্বজনদের খোঁজ না পেয়ে হাসপাতাল কতৃপক্ষের নিকট থেকে ওই লাশ দাফনের দায়িত্ব নেন সংগঠনের কর্মীরা। যা এতদিন করতো আন্জুমান ই মফিদুল।


বুধবার সন্ধ্যার পর সংগঠনের কর্মীরা লোকটিকে ইসলাম ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী উত্তম রুপে গোসল করায়।এরপর রাতেই জানাজা শেষে জমিদার ব্রিজ সংলগ্ন কবর স্থানে ওই ব্যাক্তির দাফন সম্পন্ন করে।বিষয়টি এলাকায় ব্যাপক প্রশংসা লাভ করেছে।
 গোয়ালন্দ ব্লাড ডোনার ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মাহাফুজুর রহমান মিলন বলেন, কেউ লাশের দায়িত্ব না নেয়ায় তাদের সংগঠনের উপদেষ্টা ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোস্তফা মুন্সির সার্বিক সহযোগিতায় আমরা ওই লাশের গোসল,জানাযা ও দাফনের ব্যবস্থা করি।
হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা নিতাই কুমার ঘোষ জানান, ওই ব্যক্তির মৃত্যুর পরপরই বিষয়টি উপজেলা প্রশাসন ও গোয়ালন্দ ঘাট থানাকে অবহিত করি। তাদের পরামর্শে মৃত ব্যক্তির আঙ্গুলের ছাপ নেওয়াসহ আনুষঙ্গিক কাজ সম্পন্ন করে গোয়ালন্দ ব্লাড ডোনার ক্লাবের কাছে হস্তান্তর করি।


গোয়ালন্দ ব্লাড ডোনার ক্লাবের সভাপতি মোঃ সেলিম মুন্সি বলেন,১০ দিন আগে আমরা মানসিক ভারসাম্যহীন লোকটিকে রাস্তা থেকে তুলে এনে চিকিৎসার ব্যবস্থা করি।কিন্ত তার মৃত্যু হয়। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করেও তার কোন পরিচয় বের করতে পারিনি।পরে ইসলাম ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী তাকে দাফন করি।আমরা আমাদের সামাজিক ও নৈতিক দায়িত্ববোধের জায়গা হতে কাজটা করেছি।আমি এ কাজের সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। তিনি আরো  জানান,আমরা মূলত অসহায় মানুষকে রক্ত দিয়ে জীবন বাঁচানোর প্রত্যয় নিয়ে কাজ করছি। গত প্রায় দুই বছরে দেড় হাজার ব্যাগের মতো রক্ত দিয়েছেন আমাদের স্বেচ্ছাসেবকরা।এখন গুরুত্ব দিয়েছি করোনা রোগীদের অক্সিজেন দিয়ে জীবন বাঁচানোতে।১১ টি অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে আমাদের কর্মীরা দিনরাত করোনা রোগীদের জীবন বাঁচাতে কাজ করে যাচ্ছে। আমি আমাদের কর্মীদের জন্য গর্বিত।  

(Visited 55 times, 1 visits today)