করোনা পরিস্থিতি নিয়ে রাজবাড়ীর এমপি কাজী কেরামত আলীর বিশেষ জরুরী সভা –

রুবেলুর রহমান, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম : 

উচ্চ সংক্রমণের ঝুকিতে থাকা রাজবাড়ীর করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বিশেষ জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার বিকালে রাজবাড়ীর সিভিল সার্জন কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
এ সময় জেলার সার্বিক করোনা পরিস্থিতি, অক্মিজেন ব্যবস্থা ও আগামী ৭ আগষ্ট গণহারে করোনা ভ্যাকসিন সুষ্ঠ ভাবে প্রদান নিয়ে আলোচনা করা হয়।
এতে রাজবাড়ীর সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ ইব্রাহিম টিটোনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, রাজবাড়ী-১ আসনের এমপি কাজী কেরামত আলী।


অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, রাজবাড়ী সদর হাসপাতালের তত্তাবধায়ক ডাঃ দীপক কুমার বিশ্বাস, আরএমও ডাঃ আব্দুর রহমান, মেডিকেল অফিসার ডাঃ সাখাওয়াত, সদর হাসপাতালের করোনা ইউনিট ইনচার্জ আব্দুল্লাহ আল মামুন, রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের সভাপতিে ্যাডঃ খান মোঃ জহুরুল হক প্রমূখ।


সভায় জানানো হয়, রাজবাড়ীতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮ হাজার ৮৭৩ জন। সুস্থ্য হয়েছে ৭ হাজার ১৩৮ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৬৭ জনের। এছাড়া সদর হাসপাতালে অক্সিজেন কনসেন্টেটর ও সিলিন্ডারের পর্যাপ্ত ব্যবস্থা থাকলেও করোনা রোগীদের চিকিৎসায় ডাক্তার ও নার্সের সংকট রয়েছে। এছাড়া অক্সিজেন প্লান্ট থাকলেও সেটি অক্সিজেনের অভাবে চালু হয়নি। ফলে দ্রুত সময়ের মধ্যে অক্সিজেনের ব্যবস্থা করে প্লান্ট চালুর জন্য উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করা হয়েছে। হাসপাতালে করোনা রোগীদের ৩টি ওয়ার্ডে ৫০টি বেডের বিপরীতে বর্তমানে রোগী ভর্তি রয়েছে ৫৫ জন। এরমধ্যে করোনা ওয়ার্ডে ২৮ ও আইসোলেশন ওয়ার্ডে ২৭ জন। এবং আগামী ৭ আগষ্ট গণহারে টিকা প্রদানে সবার সহযোগিতা কামনা করা হয়।
এ সময় দুপুরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও সাবেক সিভিল সার্জন ডাঃ শফিউদ্দিন পাতার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ ও তার রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া মোনাজাত করা হয়।
এমপি কাজী কেরামত আলী বলেন, দ্রুত সময়ে মধ্যে সদর হাসপাতালে অক্সিজেন সমস্যা দুর হবে। অক্সিজেন প্লান্টের অক্সিজেনের জন্য কর্তৃপক্ষের সংঙে কথা বলেছেন। এছাড়া সবাইকে টিকার আওতায় আনতে স্বাস্থ্য বিভাগের সকলকে যথাযথ ভাবে দ্বায়িত্ব পালন করতে অনুরোধ জানান।


তিনি আরও বলেন, রোগ কারও আপন নয়। আজ পাংশা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও বরিশালের সাবেক সিভিল সার্জন পাতা করোনায় মারা গেছে। সে তো ডাক্তার ছিল। কিন্তু তারপরও করোনায় মারা গেলো। আল্লাহ তাকে বেহস্ত নসিব করুক। তাই সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ও টিকা নিতে হবে।

(Visited 125 times, 1 visits today)