রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে “করোনাকালীন স্বাস্থ্যসেবা: চ্যালেঞ্জ ও করণীয়” আলোচনা –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

“করোনাকালীন স্বাস্থ্যসেবা: চ্যালেঞ্জ ও করণীয়” প্রতিপাদ্যে রাজবাড়ী আধুনিকৃত সদর হাসপাতালের স্বাস্থ্যসেবা প্রদানে গৃহিত পদক্ষেপসমূহ উপস্থাপন করলেন হাসপাতাল তত্বাবধায়ক জনাব ডা. দীপক কুমার বিশ্বাস। সনাক -এর স্বাস্থ্য বিষয়ক উপ-কমিটির আহবায়ক সনাক সদস্য মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন এর সভাপতিত্বে রাজবাড়ী সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাথে সনাক রাজবাড়ী’র মতবিনিময় সভা আজ মঙ্গলবার সকালে তত্ত্বাবধায়কের সভা কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। সভার প্রধান অতিথি ছিলেন তত্বাবধায়ক ডা. দীপক কুমার বিশ্বাস, বিশেষ অতিথি ছিলেন আরএমও ডা. আব্দুর রহমান। অনুষ্ঠিত সভায় আরো অংশগ্রহণ করেন সনাক সদস্য নুরুল হক আলম, সৌমিত্র শীল চন্দন, ডা. এবিএম সাজিদ, ডা. এসএম শাহাদৎ মিরাজ, এসএসএন মোঃ আবদুল্লাহ আল মামুন এবং ইয়েস সহ-দলনেতা খাদিজা খাতুন।


করোনাকালীন সময়ে হাসপাতালের স্বাস্থ্যসেবা প্রদান স্বাভাবিকভাবে চলমান রাখা, অদ্য সভার উদ্দেশ্য বর্ণনা, সভার কার্যবিররণী উপস্থাপন ও গৃহিত সিদ্ধান্ত সমূহের অগ্রগতি পর্যালোচনা, বিভিন্ন অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের তথ্য প্রকাশ, রশিদ ছাড়া টাকা অতিরিক্ত টাকা আদায় (বার্থ সার্টিফিকেট, বেড, কেবিন, ড্রেসিং, ইনজেকশন পুশ ও অন্যান্য), জেন্ডার বিষয়ক আলোচনা (নারী ও পুরুষের আলাদা টেকনিসিয়ান ও চিকিৎসক, নারী ও পুরুষবান্ধব অবকাঠামো ও নিরাপত্তা) সহ বিবিধ বিষয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। আলোচনায় স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় টিকিটের মূল্য বৃদ্ধি (১০ টাকা) করে কিছু সংখ্যক জনবল নিয়োগ এবং টিকিট কাউন্টার থেকে টাকা ফেরত না দেয়ার প্রবণতা বন্ধের উদ্যোগ গ্রহণ করা এবং সরকারি যে টিকিট দেয়া হয় তার সাথে আকারে বড় ও সুন্দর টিকিট ছাপিয়ে প্রদান করার সুপারিশ উপস্থাপন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। করোনাকালীন সময়ে প্রাপ্ত বাজেট থেকে ৫০টি অতিরিক্ত অক্সিজেন সিলিন্ডার ও জেনারেটর কেনা হয়েছে সেবা গ্রহিতাদের সুবিধার জন্য। বর্তমানে হাসপাতালে সেবা নেয়ার জন্য গড়ে প্রায় একহাজার মানুষ প্রতিদিন আসছে এবং তাদেরকে পর্যাপ্ত ঔষুধ দেয়া হচ্ছে এবং নতুনভাবে ১০ জন ডাক্তার স্বাস্থ্যসেবার সাথে যুক্ত হয়েছে।

সভায় মুক্ত আলোচনায় সুপারিশ জানানো হয় সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগে ডাক্তারের পদ সৃষ্টি করা। একশ শয্যার হাসপাতালে বেড ও ফ্লোর মিলিয়ে প্রায় ১৫০ থেকে ২০০ রোগী সেবা নিচ্ছে এবং সেবা প্রদানের জন্য নার্সরা নিয়োগ পাচ্ছে কিন্তু অতি জরুরী পরিচ্ছন্নতা কর্মী নিয়োগ দেয়া হচ্ছে না যেদিকে সংশ্লিষ্ট সকলের নজর দেয়া প্রয়োজন। তত্বাবধায়ক বলেন হাসপাতালের পরিচ্ছন্নতা বাড়ানো, ডাক্তারদের সাথে আচরণের পরিবর্তন এবং রোগীর সাথে আসা মানুষদের মধ্যে ভীড় না প্রবণতা বৃদ্ধির জন্য কাজ করার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

নারী স্বাস্থ্য সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে ডাক্তারের সাথে স্বাস্থ্য সহকারী হিসেবে নারী নিয়োগ করার প্রত্যয় এবং জনবল ও অবকাঠামোগত সমস্যা থাকা সত্বেও সেবাগ্রহণকারীদের সেবা দেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। হাসপাতালের পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার জন্য তত্বাবধায়ক সুপারিশ জানিয়ে বলেন রাজবাড়ীর ধর্ণাঢ্য ব্যক্তিগণ একটু সহযোগিতা করলেই হাসপাতালের মান আরো উন্নয়ন করা সম্ভব। সভাপতি সমাপনী বক্তব্যে বলেন, পূর্বের তুলনায় হাসপাতালের সেবার মান অনেক উন্নত হয়েছে। এই ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে হবে। উক্ত সভাটি সঞ্চালন করেন টিআইবি’র এরিয়া ম্যানেজার-সিই, পুলক রঞ্জন পালিত।

(Visited 50 times, 1 visits today)