গোয়ালন্দে ওয়েস্কেলে অতিরিক্ত টাকা না দেওয়ায় ড্রাইভার-হেলপারকে মারধর –

শামীম শেখ, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে যানবাহনের ওজন স্কেলে অতিরিক্ত টাকা না দেওয়ায় কর্তব্যরত আনছার ও ওয়েস্কেলের ওয়েসিটি অপারেটরের হাতে এক ট্রাক ড্রাইভার ও হেলপার মারপিটের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ভুক্তভোগী ও অন্যান্য সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গত রবিবার রাত ৮ টার দিকে ঝিনাইদাহ জেলার কোটচাঁদপুর থেকে তারা কাঁচা পন্যবাহী একটি ট্রাক নিয়ে ঢাকা যাওয়ার পথে গোয়ালন্দ ভুমি অফিস সংলগ্ন ওয়েস্কেলে আসেন।সেখানে কর্তব্যরত আনছার সদস্য মো. রানা হোসেন (৩০) এবং বিআইডব্লিউটিসির ওয়েসিটি অপারেটর মো. রাজু আহাম্মেদকে সরকার নিধার্রিত টাকার চেয়ে অতিরিক্ত টাকা না দেওয়ার কারনে ট্রাকের ( নং ঢাকা মেট্রো ২০৫৩৮০) ড্রাইভার জাহাঙ্গীর আলম (৩৩) ও হেলপার আবু সাইদের( ২৮) সাথে তর্কাতর্কির সৃষ্টি হয়।


এক পর্যায়ে ট্রাকের হেলপারকে বিআইডাব্লিউটিসির অফিস রুমে আটক করে মারপিট করতে থাকে আনসার সদস্য রানা ও অপারেটর রাজু। এ সময় ট্রাক ড্রাইভার তার হেলপারকে উদ্ধার করতে আসলে তাকেও মারধর করেন ওই দুইজন। তাদের চিৎকারে অন্য ট্রাকের ড্রাইভার হেলপাররা এগিয়ে এসে উদ্ধার করেন। এ সময় গাড়ি চলাচল বন্ধ হয়ে গেলে সড়কে লম্বা সিরিয়ালের সৃষ্টি হয়।


খবর পেয়ে ওয়েস্কেলের পাশে অবস্থিত গোয়ালন্দ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) মো. রফিকুল ইসলাম এবং গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল তায়াবীরের নেতৃত্বে একদল পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। তারা আনছার সদস্য এবং ওয়েসিটি অপারেটরকে যথাযথ বিচারের আওতায় আনার আশ্বাস দিলে ড্রাইভাররা সড়কে গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক করেন।
ট্রাকের হেলপার মো. আবু সাইদ বলেন ,আমি স্কেল রশিদ নেওয়ার জন্য কাউন্টারে যাই। সরকার নিধার্রিত ৭৫ টাকা টোল দেওয়ার পরে আনছার সদস্য অতিরিক্ত আরো ৫০ টাকা দাবী করে।এসময় অতিরিক্ত টাকা না দেওয়ায় আনছার সদস্য আমার স্কেল রশিদ দিতে অস্বীকার করেন। আমি স্কেল রশিদ চাইলে আনছার সদস্য আমাকে কিলঘুষি মারতে মারতে কম্পিউটার রুমের মধ্যে নিয়ে যায় এবং সেখানে অপারেটর রাজুও মারপিটে অংশ নেয়। আমার ড্রাইভার এগিয়ে আসলে তাকেও ওরা মারপিট করে।
অভিযোগের বিষয়ে অপারেটর রাজু দাবি করেন, তিনি ড্রাইভার-হেলপারকে মারপিট করেন নি। মারামারি ঠেকানোর চেষ্টা করেন। তবে আনছার সদস্য পালিয়ে যাওয়ায় তার বক্তব্য জানা সম্ভব হয় নি।


এ প্রসঙ্গে বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট শাখার সহ ব্যবস্থাপক মো. মাহাবুব হোসেন বলেন, ড্রাইভার -হেলপারের গায়ে হাত দেওয়ার কারনে ওয়েসিটি অপারেটর ও আনছার সদস্যকে সাময়িক ভাবে দায়িত্ব থেকে বিরত রাখা হয়েছে। বিষয়টি উদ্ধর্তন কতৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয় হবে।

(Visited 67 times, 1 visits today)