করোনায় গোয়ালন্দ উপজেলা আ.লীগের সভাপতি নুরুজ্জামান মিয়ার মৃত্যু –

আজু সিকদার, রাজবাড়ী বার্তা :

করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত শুক্রবার রাত ১০ টার দিকে ঢাকার একটি সরকারী হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন, রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব মোঃ নুরুজ্জামান মিয়া (৭৫)। (ইন্নানিল্লাহে—-রাজেউন)। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়েসহ অসংখ্য আত্নীয় -স্বজন, রাজনৈতিক সহকর্মী ও শুভাকাঙ্খী রেখে গেছেন।


শনিবার দুপুর ১ টায় গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। বেলা আড়াইটায় সরকারি গোয়ালন্দ কামরুল ইসলাম কলেজ মাঠে তাঁর জানাযা নামাজ শেষে গোযালন্দ রেলগটে মাদ্রাসা সংলগ্ন পারিবারিক গোরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।


তার মৃত্যুতে সাবেক শিক্ষাপ্রতিমন্ত্রী ও রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলীসহ রাজবাড়ী জেলা আওয়ামীলীগ ও তার সহযোগি সংগঠনের নেতারা গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন।


দলীয় ও পারিবারিক সূত্র জানায়, মো. নুরুজ্জামান মিয়ার শরীরে জ্বর সহ করোনার উপসর্গ দেখা দিলে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নমুনা প্রদান করেন। তাঁর করোনা পজিটিভ হিসেবে রিপোর্ট আসলে উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের পশ্চিম উজানচর শ্রীদাম দত্তপাড়ার নিজ বাড়িতে থেকে চিকিৎসা গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে শাররীক অবস্থার আরো অবনতি হলে তাকে গত ৫ নভেম্বর রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানে চিকিৎসাীধন অবস্থায় অক্সিজেনের পরিমাণ কমে আসায় উন্নত চিকিৎসার জন্য মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) ঢাকায় স্থানান্তর করেন। পরিবারের সদস্যরা তাঁকে ঢাকা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাকালিন পরদিন গত বুধবার শারীরিক পরিস্থিতির অনেকটা অবনতি হলে আইসিইউতে রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়। কিছুক্ষণ পর পুনরায় তাঁর অবস্থার উন্নতি হয়। বৃহস্পতিবার থেকে পরিস্থিতি অনেকটা স্বাভাবিক থাকলেও গত শুক্রবার রাতে তিনি মৃত্যু বরণ করেন।
জানাগেছে, স্বাধীনতাকালে গোয়ালন্দ হানাদার মুক্ত হলে গোয়ালন্দ বাজার হাজী আব্দুল লতিফ মিয়ার ঘর থেকে বাংলাদেশের পতাকা প্রথম উত্তোলন করা হয়। হাজী আব্দুল লতিফ মিয়ার বড় ছেলে নুরুজ্জামান মিয়া রাজবাড়ী জেলা পরিষদের সদস্য ছাড়াও গোয়ালন্দ উপজেলা আ.লীগ সভাপতি ছিলেন। এর আগে তিনি দীর্ঘদিন গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। এছাড়া তিনি গোয়ালন্দ প্রপার হাই স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও গোয়ালন্দ পৌরসভার প্রতিষ্ঠাকালীন প্রথম পৌর প্রশাসক ছিলেন। প্রবীণ এই রাজনীতিবিদ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ পরিবার থেকে জীবনের শুরু থেকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর আদর্শে রাজনীতি করেন। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি একজন সফল ও প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী এবং নীড় অহংকার মানুষ ছিলেন।

(Visited 49 times, 1 visits today)