পাংশার পদ্মা নদীতে জেলের ফাঁদে “কুমিড়” না, “ঘড়িয়াল” –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

পদ্মা নদীর রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার হাবাসপুর এলাকা থেকে এক জেলের মাছ ধরার ফাঁদে আটকে গেছে বিড়ল প্রজাতির ঘড়িয়াল। যদিও স্থানীয়রা সেটাকে কুমিড় ভেবে ভীড় করেছে তা দেখার জন্য। ওই ঘড়িয়ালটি গত বুধবার বিকালে গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু সাফারী পার্কের কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।


রাজবাড়ী জেলা বন কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম বলেন, পদ্মা নদীর রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার হাবাসপুর স্থানীয় মধু সরদারের ছেলে বাদশা সরদার বড় আকারে দুয়ারী (মাছ শিকারের যন্ত্র) নদীর তীরবর্তী এলাকায় ডুবিয়ে রেখে মাছ শিকার করে আসছেন। গত মঙ্গলবার বিকালে তিনি দুয়ারী তুলতে গিয়ে দেখেন তার মধ্যে মাছের পরিবর্তে প্রায় চার ফুট লম্বা একটা কুমিড় আকৃতির বস্তু আটকে আছে। যে কারণে তিনি ভয় পেয়ে যান এবং অত্যান্ত সতর্কতার সাথে দুয়ারীটি ডাঙ্গায় তুলে আনেন। এদিকে তার দুয়ারীতে কুমিড় ধরা পরেছে বলে বিষয়টি ছড়িয়ে পরলে তা দেখতে হাজারো মানুষ ভীর করেন।

পরবর্তীতে ফরিদপুরের বিভাড়ীয় বন কর্মকর্তা রফিকুল ইসলামের তত্ববধানে সদর উপজেলা বন কর্মকর্তা কবির হোসেন, অফিস সহকারী খন্দকার রাহাতসহ হাবাসপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের মাধ্যমে তারা ঘটনাস্থলে পৌছান এবং তা গিয়ে দেখতে পান এটা কুমিড় নয়, এটা বিড়ল প্রজাতির বিলুপ্তপ্রায় একটি ঘড়িয়াল। যে কারণে তারা ঘড়িয়ালটি উদ্ধার করে গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু সাফারী পার্কের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করেন। একই সাথে তারা ঘড়িয়ালটি একটি পানি ভর্তি ড্রামের মধ্যে রেখে তা ব্যাটারী চালিত অটোরিকশা যোগে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ঘাট পর্যন্ত নিয়ে যান। সেই সাথে সেখানে আসা গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু সাফারী পার্কের কর্তৃপক্ষের কাছে ঘড়িয়ালটি হস্তান্তর করা হয়।

ফেসবুক থেকে এ ভিডিওটি দেখা না গেলে TV Rajbari লিখে ইউটিউবে সার্চ দিলেও দেখা যাবে।

(Visited 387 times, 1 visits today)