কালুখালীর চাঞ্চল্যকর রবিউল হত্যা মামলায় ইদ্রিস নামে আরো একজন ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম : 

রাজবাড়ীর কালুখালীর মাজবাড়ীতে মুক্তিযোদ্ধার ছেলে রবিউল বিশ্বাসকে বিলের পানিতে চুবিয়ে হত্যা মামলায় ইদ্রিস প্রমাণিক (৩০) নামে আরো একজনকে গ্রেপ্তার করেছে জেলা গোয়েন্দা শাখার সদস্যরা। গ্রেপ্তারের পর ইদ্রিস আদালতে সোপর্দ করা হয়। সে আদালতে রবিউল হত্যার পরিকল্পনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে এবং কারা কারা ওই পরিকল্পনা সভায় উপস্থিত ছিলো তাদের নামও প্রকাশ করেছে।

ইদ্রিস কালুখালীর মাজবাড়ী ইউনিয়নের কোমরপুরের সমশের মার্কেট এলাকার হানিফ প্রামাণিকের ছেলে।

আজ রবিবার বিকালে জেলা গোয়েন্দা শাখার ওসি ওমর শরীফ ও এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জেলা গোয়েন্দা শাখার এসআই ফেরদৌস আহম্মেদ জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রবিউল হত্যা মামলার সন্দেহ জনক আসামি হিসেবে গত বৃহস্পতিবার রাজধানী ঢাকা থেকে ইদ্রিস প্রমাণিককে গ্রেপ্তার করা হয়। পর দিন শুক্রবার তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়। সে ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বাকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করে।
তিনি আরো বলেন, রবিউল হত্যা মামলায় ইতোমধ্যে রাকিব, সোহেল ও রাসেল নামে তিন জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রবিউল হত্যা মামলায় সোহেল ও রাসেলের জামিন হলেও তারা দুই ভাই বর্তমানে পুলিশের উপর হামলা মামলায় কারাগারে রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১৫ আগষ্ট রাতে রাজবাড়ীর কালুখালীর বেতবাড়িয়া গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত আছিরুদ্দিন বিশ্বাসের ছেলে ও মুদি ব্যবসায়ী রবিউল ইসলাম বিশ্বাস (৩৫) কে তার বাড়ীর অদুরে একটি বিলের পানির মধ্যে চুবিয়ে হত্যা করে দূর্বৃত্তরা। এ ঘটনার নিহতের স্ত্রী মোছাঃ সাবানা আক্তার বাদী হয়ে ৫ জনকে চিহ্নিত করে কালুখালী থানায় এ হত্যা মামলা দায়ের করে। এ মামলায় পুলিশ এজাহার ভুক্ত রাকিব মন্ডল, সহ তিনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অপরদিকে, রবিউল হত্যার ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকাবাসী জেলার কালুখালী থানার এসআই ফজলুল হকসহ কয়েকজন পুলিশ সদস্যকে আটকে রেখে মারপিট কার ঘটনায় কালুখালী থানার এসআই সোহাগ সাহা বাদী হয়ে ২৯০ থেকে ৩০০ জন অজ্ঞাত আসামির বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা দায়ের করেছেন। এ দুটি মামলাই জেলা গোয়েন্দা শাখার উপর ন্যাস্ত করা হয়েছে। যা তদন্ত করছেন গোয়েন্দা শাখার এসআই ফেরদৌস আহম্মেদ।

(Visited 1,524 times, 1 visits today)