করোনা ও আমার কষ্ট: সেলিনা পারভীন –

১৯ শে মার্চ ২০২০ ইং তারিখে মুজিববর্ষ উপলক্ষে উপজেলা সমবায় কার্যালয়, রাজবাড়ী সদরের গৃহীত কর্মসূচি বাস্তবায়নে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা সম্পর্কে সমবায় সমিতির সদস্যদের সচেতনতা বৃদ্ধি সংক্রান্ত একটি অবহিতকরন সভা করি। বিশ্বে তখন অনেক দেশেই করোনা ছড়িয়ে গিয়েছে। আমাদের দেশে মাত্র শুরু। তাই উদ্দেশ্য ছিলো দ্রুত সমবায় সমিতির সদস্যদের সচেতন করা। উল্লেখ্য যে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা নিয়ে পূর্ব থেকেই একজন সচেতন মানুষ।

২৬/০৩/২০ থেকে অফিস করোনা মহামারী জনিত সরকারি ছুটি হয়ে গেল।ঘরেই অবস্থান করছিলাম। প্রয়োজনে সীমিত আকারে অফিসের জরুরী কাজগুলো করে যাচ্ছিলাম সতর্কতার সাথে। এবং একই সাথে ঘরে থাকুন, নিরাপদ থাকুন, নিদিষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে অসহায় মানুষদের সাহায্যে সমবায় সমিতির ব্যাবস্থাপনা কমিটিগুলোতে আহবান জানাই। এতে করে বেশ কয়েকটি সমতি অসহায় মানুষদের সাহায্যে এগিয়ে আসে। আমি ও ব্যক্তিগত ভাবে যতটুকু পেরেছি সাহায্যের চেষ্টা করেছি। দেশ বিদেশের প্রতিদিনের করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, মৃত্যুর সংখ্যা আমাকে কাঁদাত।

১৫/০৪/২০ তারিখ আমার সিংগাপুর প্রবাসী মেয়েদের বাবা জানালো সে করোনা পজিটিভ। মনে হচ্ছিল ভেঙেচুড়ে শেষ হয়ে যাচ্ছি। ভীষন টেনশনে সময়গুলো পাড় হচ্ছিল। আমার মেয়ে মেডিকেল ৩য় বর্ষ শেষ পর্যায়ে থাকা অবস্থায় করোনার ছুটিতে আমার সাথেই আছে। মেয়ে তার বাবার টেস্ট রিপোর্ট নিলো, ঘড়ি ধরে ধরে গরম পারি খাওয়া, গড়গড়া করা, নাকে গরম পানির ভাপ নেওয়া, সময় মতে ঔষধ খাওয়ানোর টেক কেয়ার করছিল। ধীরে ধীরে সে সুস্থ হয়ে উঠলো। তারপরও অজানা আশঙ্কা থেকেই গেলো। নিজের একান্ত সময় গুলো শুধু কান্না করতাম। আসলো রোজা, সামনে ঈদ।
২৩/০৫/২০ তারিখে ফোনে খবর পেলাম খলিল ভাইয়ের ( আমার ভাসুর) মেয়ে বনি ঢাকায় গর্ভবতী অবস্থায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মাত্র ৭ দিনের মাথায় মারা গেছে। এ খবরটাও মারাত্মক ভাবে কষ্টের আমার পরিবারের জন্য। প্রতিনিয়তই কষ্টের খবর। প্রতিদিনই করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা, মৃত্যুর সংখ্যা, অনাহারে থাকা মানুষের কষ্ট- সবই আমার কষ্ট।

অথচ ঈদ করতে যারা দলবেঁধে বিভিন্ন জায়গা থেকে এলো, আবার ফিরেও যাচ্ছে তাদের কি একই কষ্ট অনুভুত হয়? তারা কি আনন্দ দিয়ে, কি আনন্দ নিয়ে গেল জানি না। তাদের জন্য আমার করোনা আক্রান্তের ভয় হয়। জানি না এই কষ্ট কবে যাবে। তবে মানসিক ভাবে শক্ত থাকার চেষ্টা করছি। আপনারাও বাইরে ঘোরাঘুরি না করে যতদুর সম্ভব বাসায় থাকুন। জনসমাবেশ এড়িয়ে চলুন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। এবং নিজেকে সুরক্ষিত রাখুন।


লেখিকা – সেলিনা পারভীন, উপজেলা সমবায় অফিসার, রাজবাড়ী সদর, রাজবাড়ী।

(Visited 185 times, 1 visits today)