সবাই ভাল থাকুক, মহামারী থেকে বিশ্ববাসী মুক্তিপাক – শাহিনা রিতা –

পুরনো দিনের চলচ্চিত্রে দেখা যেত,কোনো এলাকায় মহামারি হলে লোকজন গ্রাম ছেড়ে পালাতো। তখন কী মহামারি গ্রাম বা এলাকা ভিত্তিক হতো? কিন্তু এই ডিজিটাল যুগে এটা কোন টাইপের মহামারি? সমস্ত বিশ্ব ব্রহ্মান্ডই আজ এই মহামারিতে আক্রান্ত!!! প্রিয় স্বদেশ, বাংলাদেশ ও এর ব্যতিক্রম নয়।

আর একদিন পরেই ঈদ। EID!!! গত কয়েকদিন ধরেই EID আর DIE শব্দ দুটি মাথার মধ্যে ঘুরপাক খাচ্ছে। লকডাউন সিথিল। না করেও তো উপায় নেই। আর কতোদিন !! দেশের অর্থনীতির চাকা সচল না থাকলে, না খেয়ে মরবো অধিকাংশই।

যা বলছিলাম। EID আর DIE। ঈদ আনন্দকে উপভোগ করতে আমাদের ঘরমুখী মানুষগুলোর জন্যে কী মৃত্যুই অপেক্ষা করছে!! ভয় কিন্তু অবশ্যই আমাদের পাওয়া উচিত। বিশ্বের শক্তিশালী রাষ্ট্রগুলোই যেখানে করোনার কাছে পরাজিত,সেখানে আমরা এতো সাহস কোথায় পাই !!

এবারের ঈদ টা অন্যরকম। দেশের স্বার্থে, জনের স্বার্থে,নিজ পরিবারের সুরক্ষার্থে, ঈদে ঘরে আছি,ঘরেই থাকবো। ঈদের চাঁদের আয়নায় দাঁড়িয়ে থাকবো কিছুক্ষণ, ভেতরের আমি কে দেখবো বলে। ব্যস্ততায় অনেকদিন দেখা হয়না।

ঈদ বিলাসিতার বিনিময়ে ২/১টি পরিবারের সদস্যদের মুখে হাসি দেখেই না হয় কাটুক এবারের অন্যরকম ঈদ।

আয়োজন তো সব ঠিকই থাকবে ঘরে। কচি কচি হাতের ক্ষুদে বার্তায় ভরবে সেলফোন। ভিডিও বার্তায় দেখবো প্রিয় স্বজনদের মুখ। পার্থক্য শুধু কলিংবেল বাজবে না,আর আমিও কোনো কলিংবেল চাপবো না। আর থাকবেনা শুধু বিলাসিতা। সাধ্যের থেকেও একটু বেশি দামি ড্রেস,সাধ্যের থেকেও একটু বেশি বিলাসী আয়োজন ছেড়েছি। ঈদ টা সত্যিই অন্যরকম। শিক্ষণীয় ঈদ।

তবে এবারের স্বাভাবিক ঈদ আনন্দটা সিকেয় তুলে রাখলাম। কোনো এক সুস্থ সময়ের সুস্থ পৃথিবীতে, মুক্ত-নির্মল, স্নিগ্ধ, করোনামুক্ত বাতাসে স্বজনদের চিৎকার করে ডেকে বলবো,”বেরিয়ে এসো। আজ ঈদ। “

মন আমার মুক্ত বিহঙ্গ–

মনে মনে তাই তো বেরোতে মানা নেই। ঘুরতেও বারণ নেই। তাইতো —
চাঁদের পালকি চড়ে,আসবো সবার ঘরে,
বলো, ঈদ মোবারক,ঈদ মোবারক, ঈদ।

শাহিনা রিতা
সহকারি শিক্ষক
টাউন মক্তব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
রাজবাড়ি সদর,রাজবাড়ি।

(Visited 113 times, 1 visits today)