গোয়ালন্দের পদ্মায় জেলের জালে ৩০ কেজি’র কাতল !-

মোঃ শামিম, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

ইলিশের প্রজনন কাল বলে প্রায় দু’মাস নিষিদ্ধ ছিলো পদ্মায় মাছ ধরা। দিন কিছু দিন আগেই উঠে গেছে সেই নিষেধাজ্ঞা। তারপর থেকেই পদ্মার রাজবাড়ী অংশে লেগে গেছে মাছ মারার ধুম। ক’টা দিন মানুষের অত্যাচার থেকে রক্ষা পাওয়া পদ্মাও তাই খালি হাতে ফেরাচ্ছে না কাউকে। পদ্মার রাজবাড়ী অংশে মিলছে দারুণ সব খবর।

এর আগে ১০ কেজির চিতল আর রুই’য়ের পর পদ্মা নদীতে মিললো ৩০ কেজি ওজনের কাতল!

সোমবার দিবাগত রাতে গোয়ালন্দ উপজেলা পদ্মানদীর চর কর্নেশনা এলাকায় জেলে হারুন শেখের জালে আটকা পরে ৩০ কেজির কাতল মাছ। রাত ১ টার দিকে জেলে হারুন শেখ নৌকায় সাত জন সহকারী মিলে যখন জাল ফেলেছেন তখনই মাছটি জালে নাড়া দেয়।

দৌলতদিয়া ঘাটের ব্যবসায়ী চান্দু মোল্লা কাতল মাছটি ১ হাজার ৪ শত টাকা দরে মোট ৪২ হাজার টাকায় কিনে নেয়।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, পদ্মায় এখনো বড় আকারের মাছ রয়েছে। যদিও সংখ্যায় কম কিন্তু বড় মাছের দেখা এখনো পাওয়া যায় এক সময়ের এই প্রমত্তা পদ্মায়! এ সময় অনকে আক্ষেপ করে বলেন, ‘অথচ এক সময় এমন আকারের মাছ অহরহই মিলতো এই পদ্মায়। কিন্তু মানুষই পদ্মাকে নষ্ট করে ফেলেছে।’

জানা গেছে, পদ্মার রাজবাড়ী প্রান্তে একাধিক বাঁধ দিয়ে নদীর গতি-প্রকৃতি পরিবর্তন ছাড়াও নদী দূষণ করেছে পদ্মা পাড়ের মানুষ। প্রমত্তা পদ্মাও তার প্রতিশোধ নিয়েছে বারবার। একাধিকবার বন্যায় ডুবিয়ে দিয়ে গেছে রাজবাড়ীসহ আশেপাশের শহর-গ্রাম-গঞ্জ। তবুও হুঁশ হয়নি মানুষের, পদ্মাকে দূষিত করে গেছে তারা। তাতে করে, ভরা বর্ষায় যে পদ্মায় ইলিশে উপচে পরতো, সেই পদ্মাতেই এখন ইলিশ মেলে হাতে গোনা।

স্থানীয়রা বয়জেষ্ঠ্যরা পদ্মার প্রতি যত্নবান হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, ‘পদ্মার ওপর অত্যাচার কমালে, সেও মানুষকে মুঠো ভরে উপহার দেবে।’

(Visited 272 times, 1 visits today)