“ সড়ক দূর্ঘটনায় আহত রাজবাড়ীর সুমাইয়ার পাশে কবি ” –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম : 

সুমাইয়া আক্তার (১৫)। সে রাজবাড়ী জেলা শহরের অংকুর স্কুল এন্ড কলেজের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী। বিগত বছরের ২৪ আগষ্ট বিদ্যালয় থেকে ফেরার পথে সড়ক দূর্ঘটনায় মারাত্নক ভাবে আহত হয় সে। দীর্ঘ দিনের চিকিৎসা সেবা গ্রহণের পর ক্ষতের স্থান সারলেও মানসিক ভাবে অনেকটাই বিদ্ধস্ত সে। মাঝে মধ্যেই তার স্মৃতি শক্তি হারিয়ে যায়। যে কারণে তার চিকিৎসা নেবা অব্যাহত রেখেছেন পরিবারের সদস্যরা। তবে দারিদ্রতার কারণে ব্যাহত হচ্ছে তার চিকিৎসা সেবা। সুমাইয়ার চিকিৎসার বিষয়টি সামনে রেখে তার পাশে এসে দাঁড়িয়েছে রক্তদানে বৃহত্তর ফরিদপুর সংগঠনের রাজবাড়ী টিম।
আজ রবিবার বিকালে রাজবাড়ী টিমের কর্ণধর সোনিয়া আক্তার স্মৃতি বলেন, সুমাইয়ার পাশে দাঁড়ানোর অংশ হিসেবে তারা কবি আশ্রাফ বাবু-এর সাথে কথা বলেন। কবি আশ্রাফ বাবু এবার “নিশি মন” নামে একটি কবিতার বই প্রকাশ করেছেন। তিনি সুমাইয়ার নামে “নিশি মন” বাইটি উৎসর্গ করার পাশাপাশি ওই বই বিক্রির পুরো টাকাটাই তিনি সুমাইয়ার চিকিৎসা ব্যয় হিসেবে দান করেছেন। গত শনিবার সন্ধ্যায় জেলা শহরের রেদেলা রেষ্টুরেন্টে আনুষ্ঠানিক ভাবে ওই টাকা সুমাইয়ার মামার হাতে তুলে দেয়া হয়। সে সময় তিনি ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, কবি তাসির সালামসহ সংগঠনের অন্যান্য সদস্যরা।
সুমাইয়ার মামা মারুফ হোসেন জানান, সুমাইয়ার বাবার নাম জালাল উদ্দিন। তার বাড়ী রাজবাড়ী সদর উপজেলার দাদশীতে। তিনি একজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। ফলে মেয়ের চিকিৎসা ব্যয় মেটাতে হিমসিম খাচ্ছেন। এ অবস্থায় কবি আশ্রাফ বাবু তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তাই এখন পুনরায় ঢাকায় নিয়ে সুমাইয়ার চিকিৎসা করানো সম্ভব হবে।
কবি আশ্রাফ বাবু জানান, সড়ক দূর্ঘটনায় সুমাইয়ার আহত হবার বিষয়টি জেলা শহরে ব্যাপক ভাবে আলড়ন সৃষ্টি করে। যে কারণে তিনিও সুমাইয়ার নামে “নিশি মন” বাইটি উৎসর্গ করেছেন। সেই সাথে ওই বই বিক্রির সমুদয় অর্থ তিনি সুমাইয়াকে দেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। তিনি আশা করেন, সুমাইয়া দ্রæত সুস্থ্য হয়ে স্কুলে ফিরে যাবে।

(Visited 365 times, 1 visits today)