জামালপুরে মন্দিরের মুর্তি ভাংচুর করে গা-ঢাকা দিলেন প্রতিষ্ঠাতা

নিজস্ব প্রতিবেদক :

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দির জামালপুরে মন্দিরের একাধিক মূর্তি ভাংচুর করে গা-ঢাকা দিয়েছেন ওই মন্দিরের এক প্রতিষ্ঠাতা। এ ঘটনার খবর পেয়ে গত শনিবার সকালে বালিয়াকান্দি থানার ওসিসহ সঙ্গীয় পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ওই মন্দির প্রতিষ্ঠাতার নাম সুনিল কুমার মন্ডল (৬০)। তার বাবার নাম সুরেন মন্ডল। বাড়ী জামালপুর ইউনিয়নের মাশালিয়া গ্রামে।
সুনিলের ভাই অনিল কুমার মন্ডল জানান, দীর্ঘ ১০ বছর যাবৎ নিজ বাড়ীতে হরি ঠাকুরের মন্দির নির্মান করে ওই মন্দিরের মধ্যেই রাত্রি যাপন করে আসছিল সুনিল। গত শুক্রবার সকালে উপজেলার জঙ্গল ইউনিয়নের পোটরা গ্রাম থেকে তার দু’জন ভক্ত ওই বাড়ী আসে। এ সময় তিনি ওই ভক্তদের আপ্যায়ন করতে পরিবারের সদস্যদের অনুরোধ করে। তবে পরিবারের সদস্যরা ভক্তদের আপ্যায়ন না করায় তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। এ নিয়ে তার ছেলে গুরুপদ মন্ডল, পুত্রবধু, স্ত্রী’র সাথে তিনি ঝগড়া করেন। এ ঘটনার কিছু সময় পর তিনি ওই মন্দিরের কার্তিক ঠাকুর, হরিচাঁদ মুর্তি ও শান্তি মা মুর্তি ভাংচুর করে পাশের ডোবায় ফেলে দেন এবং কাউকে কিছু না বলে আতœগোপনে চলে যান। এর পর থেকে তার আর কোন খোজ পাওয়া যাচ্ছে না।
সুনিল মন্ডলের ছেলে গুরুপদ মন্ডল জানান, ঝগড়ার সূত্র ধরে তার পিতা নিজেই মুর্তি ভেঙ্গে পালিয়েছে।
স্থানীয় জামালপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান একেএম ফরিদ হোসেন বাবু জানান, খবর পেয়ে গত শনিবার সকালে তিনি ওই বাড়ীতে গিয়েছিলেন এবং ওই পরিবারের সদস্যদের সাথে আলোচনা করে বুঝেছেন মন্দিরের মুর্তি গুলো সুনিল মন্ডল ভেঙ্গেছে।
বালিয়াকান্দি থানার ওসি আবু সামা মোঃ ইকবাল হায়াৎ জানান, গত শনিবার সকালে বালিয়াকান্দি থানার ওসিসহ সঙ্গীয় পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তার ধারনা সুনিল মানসিক ভাবে বিকারগ্রস্ত একজন মানুষ। তবে এ ঘটনায় থানায় কোন অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।

(Visited 30 times, 1 visits today)