শহীদওহাবপুরে তিনটি মন্দিরের মূর্তি ভাংচুর

নজরুল ইসলাম :

অজ্ঞাত দূর্বত্তরা সোমবার রাতের কোন এক সময় শহিদোহাবপুর ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের গৌরিপুর সাহাপাড়া কালি মন্দিরের মৃর্তির মাথা ভেংগে ছবি-রাজবাড়ী বার্তা

গত সোমবার রাতে রাজবাড়ী জেলা সদরের শহীদওহাপুর ইউনিয়নের সাহাপাড়া ও চন্দ্রপাড়া গ্রামের তিনটি মন্দির ভাংচুর করা হয়েছে।
ইউনিয়ন চেয়ারম্যান একেএম শফিউদ্দিন আহম্মেদ কাশেম ও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান জানান, অজ্ঞাত দূর্বত্তরা সোমবার রাতের কোন এক সময় ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের গৌরিপুর সাহাপাড়া কালি মন্দির ও পাশ্ববর্তী ৮ নং ওয়ার্ডের চন্দ্রপাড়া গ্রামের কার্তিক মজুমদারের বাড়ীর কালি মন্দির এবং ধিরেন চন্দ্রের বাড়ীর কালি মন্দিরে প্রবেশ করে। তারা ওই সব মন্দিরে থাকা মূর্তি গুলো ভেঙ্গে তা মাটিতে নামিয়ে রেখে পালিয়ে যায়।
গৌরিপুর সাহাপাড়া কালি মন্দির কমিটির সভাপতি স্বপন কুমার সাহার স্ত্রী সন্ধ্যা রানী সাহা জানান, তারা নিয়মিত ভাবে ওই মন্দিরে পূজা করে আসছেন। মঙ্গলবার সকালে মন্দিরের সামনের ঝাড়– দিতে গিয়ে দেখেন ওই মন্দিরের ৭টি মূর্তির মধ্যে ৬ টি মূর্তির মাথা ভেঙ্গে নিচে ফেলে রাখা হয়েছে। একই অবস্থা করা হয়েছে, পাশ্ববর্তী কার্তিক মজুমদার ও ধিরেন চন্দ্রের বাড়ীর মন্দিরে।
কমিটির সভাপতি স্বপন কুমার সাহা জানান, তাদের সাথে এলাকার কোন মানুষের বিরোধ নেই। তার পরও কারা কি কারণে মন্দির গুলোতে হামলা ও ভাংচুর করেছে তা তিনি জানাতে পারেননি।
জেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি অশোক বাগচি বলেন, সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে ভীতি সৃষ্টি করতে দূর্বত্তরা ওই তিনটি মন্দিরে মূর্তি ভাংচুর করেছে। তিনি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানানোর পাশাপাশি দূর্বত্তদের গ্রেপ্তার পূর্বক শাস্তির দাবী জানান।
রাজবাড়ী থানার এসআই হারুন অর রশিদ জানান, খবর পেয়ে মঙ্গলবার সকালে রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তোফায়েল আহম্মেদ, রাজবাড়ী থানার ওসি (তদন্ত) জহুরুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তবে ওই ঘটনায় বিকাল পর্যন্ত থানায় কোন অভিযোগ দায়ের হয়নি।

(Visited 41 times, 1 visits today)