কাফনের কাপড় পাঠিয়ে ভীতি প্রদর্শন

কাজী আব্দুল কুদ্দুস বাবু :

6-

রাজবাড়ীতে কাফনের কাপড় পাঠিয়ে ভীতি প্রদর্শন করা হয়েছে কৃষক লুৎফর রহমানের পরিবারকে। ঘটনাটি ঘটেছে রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানগঞ্জ ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের কৃষক লুৎফর রহমানের বাড়ীতে।
লুৎফর রহমান জানান, গত মঙ্গলবার ভোরে বেলা তার পরিবারের সদস্যরা ঘুম থেকে উঠে দেখে তার উঠানে একটি কাফনের কাপড়ে শিশু জড়ানো সদৃশ্য বস্তু। এটি দেখে বাড়ীতে চিল্লা চিল্লি শুরু হয়ে যায়। ডাক চিৎকারে আশে পাশের লোক জন ছুটে আসেন। পরে সেটি খুলে দেখা যায় তার ভিতরে কোন লাশ নেই। এর পর থেকে আতঃঙ্কের ভিতর তাদের সময় পার হচ্ছে।
এ খবর ছড়িয়ে পরলে ইউপি সদস্য কাওছার মন্ডল তথ্যানুসন্ধানে জানতে পারেন, বেলগাছী পুরাতন বাজারের কাপড় ব্যবসায়ী বীরেন সাহার দোকান থেকে জামাল এই কাফনের কাপড় কিনেছে এবং কাপড়ের দেকানদার বীরেন সাহা তা স্বীকার করেছেন।
লুৎফর রহমানের স্ত্রী মাজেদা বেগম জানান, একই গ্রামের জামাল শেখ তার পরিবারের অনেক ক্ষতি সাধন করার চেষ্টা করছে। সে ৪/৫ মাস পূর্বে চানাচুরে মধ্যে বিষ দিয়ে তার সন্তানকে খাইয়ে মারার চেষ্ট করে। এখন আবার কাফনের কাপড় পাঠিয়ে তাদেরকে ভয় দেখাচ্ছে।
লুৎফর রহমানের বড় ভাই লোকমান শেখ জানন, একই এলাকার মৃত কেসমত আলী শেখের ছেলে জামাল শেখ রাতের আধারে তাদের বাড়ীর উঠানে রাখা পাট কাঠির স্তুপেও আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে তাদের বেশ ক্ষতি সাধন হয়। তিনি আরো জানান, ইউপি সদস্য কাওছার মন্ডল প্রতিনিয়ত বখাটে জামাল কে আশ্রয় প্রশ্রয় দিয়ে আসছে। তার জন্যই জামাল এত সাহস পাচ্ছে।
খানগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আতাহার হোসেন তকদির জানান, খবর টি জানার পর তিনি লুৎফর রহমানের বাড়ী যান এবং ঘটনাটির সত্যতা পান। এ সময় তার সাথে ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আবুল কাশেম বিশ্বাস, মোঃ বাবুল মিয়া, মোঃ তমসেল মল্লিক, সামছুন নাহার, আকরাম হোসেন ও কাওছার মন্ডল। তিনি এ বিষয়ে লুৎফর রহমানের পরিবারকে আইনগত ব্যবস্থা নেবার জন্য বলেন। প্রয়োজনে তিনি তার পরিষদের সদস্যগণকে নিয়ে সহযোগীতা করার আশ্বাস দেন।

(Visited 35 times, 1 visits today)