দৌলতদিয়া যৌনপল্লী থেকে কিশোরী উদ্ধার

আজু সিকদার :

অপহরনের ১৩ দিন পর অপহৃত ১৫ বছরের কিশোরীকে গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া যৌনপল্লী থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। দিনাজপুরের পার্বতীপুর থেকে গত ১৩ নভেম্বর ওই কিশোরী অপহরন হয়। বুধবার ভোরে তাকে যৌনপল্লীর বাড়িওয়ালা সরোয়ার হোসেন ওরফে সরোর বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়।
অপহরন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও পার্বতীপুর থানার এস আই মোস্তফা কামাল জানান, গত ১৩ নভেম্বর বিকেলে ওই কিশোরী পার্ব্বতীপুর খোলাহাটি বাজারে যায়। এরপর সন্ধ্যা পেরিয়ে রাত হলেও সে বাড়িতে ফিরে না আসায় পরিবারের লোকজন বিভিন্ন জায়গায় খুঁজাখুঁজি করতে থাকে। এসময় গভীর রাতে অপহৃত ওই কিশোরীর মোবাইল ফোন থেকে কিশোরীর মায়ের কাছে অজ্ঞাত ব্যক্তি ফোন করে বলে তাকে অপহরন করা হয়েছিল তবে এখন তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। পরিবারের সদস্যরা এরপর থেকে বিভিন্ন ভাবে তার সন্ধানের চেষ্টা করতে থাকে। একপর্যায়ে তারা জানতে পারে তাদের মেয়ে দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে অবস্থান করছে। অবস্থান নিশ্চিত হয়ে অপহৃত কিশোরীর মামা মো. সাহাদ আলম বাদী হয়ে পার্বতীপুর থানায় ২৫ নভেম্বর ৩জনকে আসামী করে অপহরন মামলা দায়ের করেন। মামলায় আসামী করা হয় পার্বতীপুর খোলাহাটি শহীদ মাহবুব সেনানিবাসের মালী মো. সবুজ, মো. কামাল ও সেনা সদস্য মো. মিন্টু হাবিলদার।
তিনি আরো জানান, মামলা দায়েরের পরই তিনি গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশের সহযোগিতায় বুধবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে অপহৃত ওই কিশোরীকে যৌনপল্লী থেকে উদ্ধর করে পার্বতীপুরে নিয়ে যান।
গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি একেএম নাসির উল্যাহ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বার্তা পাওয়ার পর দ্রুত সময়ের মধ্যে ভিকটিমকে উদ্ধার করা হয়েছে।

(Visited 48 times, 1 visits today)