হত্যা মামলার বাদীকে হত্যার চেষ্টা

নিজস্ব প্রতিবেদক :

মামলা তুলে না নেয়ায় রাজবাড়ী জেলা সদরের রামকান্তপুর ইউনিয়নের বেথুলিয়া ডাঙ্গিপাড়া গ্রামে এক হত্যা মামলার বাদীকে হত্যার চেষ্টা চালানো হয়েছে। ওই বাদীকে আহত অবস্থায় রাজবাড়ী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত বাদীর নাম লিটন মাহমুদ (৩৫)। সে একই ইউনিয়নের মাটিপাড়ার বেথুলিয়া গ্রামের আকবর আলী সেখের ছেলে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার সকালে আহত লিটন মাহমুদ বাদী হয়ে রাজবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।
সদর হাসপাতালে ভর্তি থাকা রাজবাড়ী আর্ট কর্ণারের মালিক লিটন মাহমুদ বলেন, বিগত বছরের ১৩ মে সন্ধ্যায় গ্রাম্য সাশিলের মধ্যে প্রতিপক্ষের লোকজন তার ছোট ভাই ঠান্ডু সেখ (২৬) ও তাকে কুপিয়ে আহত করে। পরবর্তীতে গুরুতর অবস্থায় ঠান্ডু সেখকে রাজবাড়ী হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষনা করে। এ ঘটনার পর সে দীর্ঘ দিন বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা গ্রহণ করেন। সেই সাথে কিছুটা সুস্থ্য হয়ে জেলা সদরের রামকান্তপুর ইউনিয়নের বেথুলিয়া ডাঙ্গিপাড়া গ্রামের মৃত জব্বার সরদারের ছেলে মিনাজুদ্দিন সরদারকে প্রধান আসামী করে তার ছেলে খোরশেদ সরদার, রবিউল সরদার, দেলোয়ার হোসেন দিলু, স্ত্রী বেলুয়া বেগম ও মেয়ে পলি বেগমের নামে রাজবাড়ী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই হত্যা মামলাটি থানার একাধিক কর্মকর্তা তদন্তকারী করেন। দেড় মাস পূর্বে থানার তৎকালিন এসআই গাজী মাহবুবুর রহমান ওই ৬ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশীট প্রদান করে। এ চার্জশীট প্রদান করার পর থেকেই আসামীরা তাকে এবং তার পরিবারের সদস্যদেরকে হত্যা করাসহ নানা রকম হুমকি প্রদর্শন করে আসছেন। দুই দিন পূর্বেও আসামীরা তার বাড়ীতে যান এবং হুমকি প্রদর্শন করেন। গত মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে নিজ বাড়ীতে মহরম উপলক্ষে আয়োজিত মিলাদ মাহফিল শেষে তিনি একটি মোটর সাইকেলে জেলা শহরের উদ্দেশ্যে রওনা হন। তার মোটর সাইকেলটি বাড়ী থেকে এক কিলো মিটার দুরে অবস্থিত ডাঙ্গীপাড়ার জনৈক সালামের বাড়ীর সামনে পৌছতেই লাঠিশোঠা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে মুখোশ পড়া তিন জন এবং মুখোশ ছাড়া তিন জন দূর্বৃত্ত গতিরোধ করে। সেই সাথে তাকে লাঠিপেটা করার পাশাপাশি দূর্বৃত্তরা হত্যার চেষ্টা চালালে মোটরসাইকেল ফেলে রেখে তিনি কোন রকমে মাঠের মধ্য দিয়ে দৌড়ে পাশ্ববর্তী ইয়ার আলীর বাড়ীতে গিয়ে আশ্রয় নেন। সে সময় ওই বাড়ীতে মহরম উপলক্ষে চলা মিলাদ মাহফিলে আগত লোকজন তাকে উদ্ধার করার পাশাপাশি দূর্বত্তদের ধাওয়া করে। পরে তাকে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
রাজবাড়ী থানার ওসি শহীদুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় লিটন মাহমুদ রাজবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

(Visited 15 times, 1 visits today)