মুক্তিযোদ্ধাদের কল্যানে কাজ করতে হবে – অতিরিক্ত আইজিপি (অব:) আব্দুস সাত্তার পিপিএম

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম:

DSC03150

বাংলাদেশ পুলিশ বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অতিরিক্ত আইজিপি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সাত্তার পিপিএম বলেছেন বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আমরা বক্তৃতায় শুনি মুক্তিযোদ্ধারা দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান কথাটি শতভাগ সঠিক। শুধু বক্তৃতায় বললে হবে না মুক্তিযোদ্ধারা যাতে ভালো থাকতে পারে সে জন্য তাদের কল্যানে কাজ করতে হবে। দিতে হবে নানা প্রকার সুবিধা এবং সম্মান। এক বছর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান নয় প্রতি বছর যেন মুক্তিযোদ্ধাদের এ ভাবে সংবর্ধনা প্রদান করা হয় সে ব্যাপারে আয়োজকদের প্রতি আহব্বান জানান তিনি। বাংলাদেশের প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা ২ হাজার থেকে বাড়িয়ে ৮ হাজার টাকায় করেছে সে জন্য তাকে ধন্যবাদ প্রদান করেন এই সাবেক কর্মকর্তা। পাকিস্তান আমলে বছরে ২ বার ৭০ থেকে ৭৫ জন সেনা সদস্য নিয়োগ নিয়োগ করা হতো এর মধ্যে বাঙ্গালি থাকতো মাত্র ৫ থেকে ৬ জন। সেই সময় যদি সঠিকভাবে সমান করে লোক নিয়োগ করা হতো তবে এখন প্রত্যেক থানা কমকরে হলেও এক জন সেই সময়কার অফিসার থাকতো। গন প্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার আমাকে নিয়োগ দিয়েছিল ভালো কাজ করার জন্য কর্মজীবনের সততার সাথে কাজ করার চেষ্টা করেছি। রাজবাড়ীর পুলিশ সুপারের এমন ভালো উদ্যোগের জন্য তিনি ধন্যবাদ প্রদান করেন। সেই সাথে বলেন এই পুলিশ সুপার যদি বদলি হয়েও যায় সব অফিসারতো বদলি হয়ে যাবে না নতুন যিনি আসবেন তাকে মনে করিয়ে দিতে হবে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনার কথা। তবেই তিনি এই ধরনের কাজে আগ্রহী হবে।

গত বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজবাড়ীর পুলিশ সদস্য মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান করা অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ পুলিশ বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অতিরিক্ত আইজিপি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সাত্তার পিপিএম প্রধান অতিথি বক্তৃতায় এ সব কথা বলেন।
জেলা পুলিশের আয়োজনে রাজবাড়ীর পুলিশ লাইনে অনুষ্ঠিত হয় এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠান। পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির পিপিএম-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি বক্তৃতা করেন, রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক মোঃ রফিকুল ইসলাম খান। বক্তৃতা করেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তোফায়েল আহম্মেদ, সহকারী পুলিশ সুপার রবিউল ইসলাম ও শুক্লা রায়, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মহম্মদ আলী মন্ডল, সদর থানা কমান্ডার আব্দুল জলিল, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ মোজাম্মেল হক, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ নুরুজ্জামান, কাজী শহীদুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা বীজন সরকার প্রমুখ। পরে রাজবাড়ী জেলার অবসরপ্রাপ্ত ৪৫ জন পুলিশ সদস্য মুক্তিযোদ্ধার হাতে ফুল ও উপহার তুলে দেয়া হয়।

(Visited 35 times, 1 visits today)