দাদশীতে প্রতিপক্ষের মারপিটে বিএনপি নেতাসহ আহত ৩

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

RAJBARI MARAMARI NEWS PIC 19 OCT

জেলা সদরের দাদশী ইউনিয়ন বিএনপি’র কমিটি ঘোষনাকে কেন্দ্র করে ৬নং ওর্য়াড বিএনপি’র সভাপতি রফিকুল ইসলাম ওরফে পাকুসহ ৩ পিটিয়ে আহত করেছে প্রতিপক্ষ। এ সময় আহতদেরকে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে জরুরী বিভাগের চিকিৎসা শেষে ভর্তি করে পুরুষ ওর্য়াডে পাঠানো ও সুলতান এবং মোতালেবকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।

জানাগেছে, গত সোমবার সন্ধ্যায় ১০/১২ জনের একটি গ্রুপ দাদশী ইউনিয়নের সিংগা বাজার চিশতিয়া ফার্মেসী অর্থাৎ মোতালেব হোসেন এর দোকানে এ ঘটনাটি ঘটে। আহতরা হলেন, ৬নং ওর্য়াড বিএনপি’র সভাপতি রফিকুল ইসলাম ওরফে পাকু, কর্মী মোঃ সুলতান ও ৯নং ওর্য়াডের সাংগঠনিক সম্পাদক মোতালেব হোসেন।
আহত পাকু জানান, ওই বিকাল ৪টার দিকে জেলা বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে ইউনিয়ন বিএনপির সাধারন সম্পাদক পদে নির্বাচনের মাধ্যমে সম্পাদক ঠিক করা হয়। এতে বর্তমান সাধারন সম্পাদক মোঃ মজিবর রহমান মাহবুব আলম লিটনের কাছে ১৭-৯ ভোটে পরাজিত হয়। পড়ে আমরা সবাই যার যার মত বাড়ী ফিরে যাই। প্রতিদিনের মত বাড়ীয় পাশর্^বর্তী সিংগা বজারের চিশতিয়া ফার্মেসীতে বসে কয়েক জন গল্প করছিলাম। এমন সময় বর্তমান সম্পাদক মজিবুর রহমান, তার ভাই আজিবুর রহমান, আব্দুস সাত্তার, ছেলে রাসেল, ভাতিজা সাইফুল, শালা কোরবান, শাহিন সহ বেশ কয়েক জন আমার উপর অতর্কিত হামলা করে। এ সময় আমাকে তারা লাথি, কিল, ঘুষি ও দোকানের ঝাপের লাঠি দিয়ে আঘাত করে। বুকের বাম পাশে লাঠির পারের আঘাতটি বেশ মারাত্মক মনে হচ্ছে।
তিনি অরোও জানান, এ সময় তারা শুধু আমাকে মারে নাই মেরেছে ইউনিয়ন সাংগঠনিক আব্দুর রহিম মুন্সি, ৫নং ওর্য়াডের সাধারন সম্পাদক জলিল দেওয়ান, কর্মী মোঃ সুলতান ও ৯নং ওর্য়াডের সাংগঠনিক সম্পাদক মোতালেব হোসেন, স্থানীয় মেঝো মনি সহ অনেককে পিঠিয়েছে। এক কথায় যারা ঠেকাতে এসেছে তাদেরও তারা পিটিয়েছে। আজ সকালে মজিবর আমাকে ৫ শত টাকা সেধেছিল আমি নেই নাই। আমি নিশ্চিত সাধারন সম্পাদকের পদ হারানোই মুল কারণ। কিন্তু ভোটার আমি তো ভোটার একলা না ওর্য়াডের মোট ২৭ জন ভোটার। সব রাগ আমা উপর ঝাড়লো। আমি এর বিচার চাই।
চিশতিয়া ফার্মেসীর মালিক মোতালেব হোসেন জানান, প্রতিদিনের মত তারা আমার দোকানে গল্প করছিল। এ সময় উপরে উল্লেখিত ব্যক্তিগণ অতর্কিত হামলা করে। আমি নিষেধ করলে আমাকেও পেটায় এবং আজিবর বলে আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে বাজার থেকে দোকান খালি করবি তানাহলে কপালে কষ্ট আছে।
নির্বাচিত সাধারন সম্পাদক মাহবুব আলম লিটন জানান, এটা সম্পুর্ন পরিকল্পিত একটি ঘটনা। ওরা সমাজের একটি ঘৃনিত লোক, সমাজের একটা খারাপ লোক সমাজে যে অপকর্ম গুলো করে এটা তারিই প্রতিফলন। এ ঘটনার সাথে মজিবর , আজিবর , সাত্তার সহ ওদের ভাই-ভাতিজা জরিত আছে। এদের আইনের আওতায় এনে বিচার করা উচিত।
ইউনিয়ন সভাপতি গোলাম মোর্তজা জানান, যে ঘটনাটি ঘটেছে এটি একটি নিন্দনীয় ঘটনা। ইউনিয়ন নেতা কর্মীর ভিত্তিতে আমারা নেতা নির্বাচন করি। কিন্তু এটাকে কেন্দ্র করে কতিপয় লোকজন যারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তাদেরকে নিন্দা জানাই।
পরে আহতদেরকে হাসপাতালে দেখতে আসেন, দাদশী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোঃ লুৎফর রহমান বাচ্চু, ইউনিয়ন বিএনপির কাউন্সিলের আহব্বায়ক মোঃ বেলায়েত হোসেন, ইউনিয়ন সভাপতি গোলাম মোর্তজা, নব-নির্বাচিত সাধারন সম্পাদক মাহবুব আলম লিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রহিম মুন্সি, সরকারী কলেজের ভিপি মোঃ আরিফুজ্জামান আরিফ প্রমূখ।

(Visited 55 times, 1 visits today)