বালিয়াকান্দিতে চলছে হিন্দু সম্প্রদায়ের দুর্গোৎসবের প্রস্ততি

নুর আলম সিদ্দিক :

66

রাজবাড়ীর জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলায় এ বছরের হিন্দু সম্প্রদায়ের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব দুর্গোৎসব সামনে রেখে চলছে ব্যাপক প্রস্ততি ।
উপজেলার বিভিন্ন স্থানে মন্ডবে মন্ডবে বইছে আনন্দের বারতা । দেবী দুর্গাকে বরণ করে নিতে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন এখন ব্যস্ত সময় পার করছে ।
সরেজমিন দেখা যায়, সোনাপুর দুর্গা মন্দির সহ সবকটি উপজেলার মন্দিরগুলোতে চলছে পুজার ব্যাপক প্রস্ততি । সার্বজনীন পুজা কমিটির হিসাব অনুসারে রাজবাড়ীসহ দেশজুড়ে প্রায় ২৯ হাজার ৫০০ টি মন্ডবে চলছে শারদীয় দুর্গাপুজার প্রস্ততি এরমধ্যে বালিয়াকান্দিতে প্রায় দেড়শটি মন্দিরে পুজার প্রস্ততি চলছে ।
উপজেলার প্রতিটা দর্জির দোকানে ও কাপড়ের দোকান গুলোতে চলছে বেচা কেনার ধুম। আগামী ১৮ অক্টোবর থেকে ২২ অক্টোবর পর্যন্ত পাঁচ দিনব্যাপী শারদীয় দুর্গোৎসবের আয়োজন চলছে । এ উৎসব ঘিরে এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমাশিল্পীরা।
বালিযাকান্দি, সোনাপুর, বহরপুর, নারুয়া, জামালপুর, জঙ্গল ,ইসলামপরু, রামদিয়া, চামটা, নবাবপুর উইনিয়নের বেরুলী সাহেবপাড়া গ্রামের মন্দিরে ছোট বড় প্রতির্মা তৈরিতে ব্যস্ত রয়েছে প্রতিমাশিল্পীরা ।
প্রতিমা কারিগর শ্রী ভুষন পাল ( ৪০ ) বলেন, দুর্গাপুজা এলে আমরা ব্যাস্ত হয়ে পড়ি । কারণ দুর্গাপুজার ২ থেকে ৩ মাস আগে বিভিন্ন জায়গা থেকে আমাদের কাছে প্রতিমা তৈরির অর্ডার আসে। তাই আমাদের নানা জায়গা যেতে হয় আর বাকি সময়গুলো বাড়ীতে কাজ করি । এটেল ও বেলে মাটির এসব প্রতিমা তৈরিতে বিভিন্ন আকৃতি অনুসারে দাম হয় । বড় আকৃতির প্রতিমা গুলো তৈরিতে দাম পড়ে ৬০ থেকে ৭০ হাজার টাকা ,মাঝারি প্রতিমা ১০ থেকে ২০ হাজার টাকা হয়ে থাকে । এদিকে পুজার সময় রাজনৈতিক পরিস্থিতি সহ আইনশৃঙ্খøলা স্বাভাবিক থাকবে বলে আশা করছেন হিন্দু ধর্মালম্বীরা ।
বালিয়াকান্দির উপজেলার পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বিনয় কুমার চক্রর্বী বলেন, প্রতি বছরে পুজার সময় বিভিন্ন জায়গায় বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ঘটে থাকে । আশা করছি এবছরের এমন হবে না। সরকার এ বিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ নেবে এছাড়া দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি বর্তমানে স্বাভাবিক থাকায় সবাই সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে পুজা পালন করতে পারবেন বলে তিনি আশা করছেন।

(Visited 20 times, 1 visits today)