রাজবাড়ীতে এক স্থানে বিএনপি’র দু’গ্রুপের সভা আহবান, ১৪৪ ধারা জারি’র সম্ভাবনা-

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

রাজবাড়ী জেলা বিএনপি’র দুই গ্রুপের প্রকাশ্য বিরোধ চলছে দীর্ঘ দিন ধরে। ওই বিরোধের অংশ হিসেবে দলীয় কার্যালয়ে এক গ্রুপ পূর্ব ঘোষনা দিয়ে সমাবেশের আয়োজন করে। তবে অপর গ্রুপ ওই সমাবেশ বাঁধা গ্রস্ত করতে একই স্থানে দিয়েছে পাল্টা কর্মী সভার ঘোষনা। জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে দলীয় কার্যালয়ে আগামী কাল (শনিবার) ১৪৪ ধারা জার করার জন্য জেলা ম্যাজিষ্ট্রেটকে অনুরোধ করা হয়েছে।
জানাগেছে, গত ১ সেপ্টেম্বর ছিলো বিএনপি’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী। ওই দিন জেলা বিএনপি’র সভাপতি ও সাবেক এমপি আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়মের নেতৃত্বাধিন নেতা-কর্মীরা দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করেন। ওই দিনই ঘোষনা করা হয়, বিএনপি প্রতিষ্ঠা বাষির্কীসহ বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের কারামুক্তি দিবস পালন উপলক্ষে কাল (শনিবার) বিকালে জেলা কার্যালয়ে সমাবেশ করার। সে ঘোষনা অনুযায়ী জেলার ৫টি উপজেলার নেতা-কর্মীদের নিয়ে বৃহত্তর পরিশরে সমাবেশটি সফল করার সর্বাতœক কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়।
তবে হঠাৎ করেই আজ শুক্রবার বিকালে জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক হারন অর রশিদের গ্রুপের পক্ষ থেকে জেলা শহরের মাইকিং করা হয়। ওই মাইকিংয়ে বলা হয়, জেলা বিএনপি কার্যালয়ে কাল (শনিবার) বিকালে কর্মী সভা অনুষ্ঠিত হবে।
জেলা বিএনপি’র সভাপতি ও সাবেক এমপি আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়ম জানান, বিএনপি কার্যালয়ে নিয়মিত ভাবে তারা সভা-সমাবেশসহ দলীয় সকল কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছেন। আর দলীয় কার্যালয়ে ওই সব সভা-সমাবেশ করতে কখনোই তারা জেলা প্রশাসনের অনুমতি নেন না। যে কারণে আজকের সমাবেশেরও তারা কোন অনুমতি নেন নি। তাদের সমাবেশটা অনেক বড় হবে এবং ওই সমাবেশে জেলার ৫টি উপজেলার বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের কয়েক হাজার মানুষের ঢল নামবে। ফলে আওয়ামীলীগের লেজুবৃত্তি করা কথিত বিএনপি’র নেতারা তার এ সমাবেশ বাঁধা গ্রস্ত করতে উঠে পরে লাগে। তারা আওয়ামীলীগের সাথে আতাঁত করে মাইকিং এবং সুকৌশলে জেলা প্রশাসকের কাছে একই স্থানে কর্মী সভা করার আবেদন করেছে।
জেলা বিএনপি’র যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক এ মজিদ বিশ^াস জানান, হারুন গ্রুপের লোকজন জেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাড: এমএ খালেকের চেম্বারের তাদের দলীয় কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকেন। তারা জেলা বিএনপি কার্যালয়ে আসেন না। অথচ শুধুমাত্র তাদের সমাবেশটির প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতেই তারা “কর্মী সভা”র ঘোষনা দিয়ে মাইকিং করছে।
রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক মোঃ শওকত আলী জানান, জেলা বিএনপি’র কর্মসভার অনুমতি চেয়ে তার কাছে আবেদন করা হয়েছে। ওই আবেদনটি পুলিশ সুপারের মতমতের জন্য পাঠানো হয়েছে। তবে জেলা বিএনপি’র সভাপতি ও সাবেক এমপি আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়মও আজ বিকালে তার কাছে একই স্থানে সমাবেশ করার অনুমতি চেয়েছে। তিনি তাকেও লিখিত ভাবে আবেদন করা জন্য বলেছেন।
রাজবাড়ীর সহকারী পুলিশ সুপার (আপরাধ) আসাদুজ্জামান জানান, একই স্থানে বিএনপি’র দুইটি গ্রুপ কর্মসূচীর আয়োজন করেছে। ফলে জেলা ম্যাজিষ্ট্রেটকে সেখানে ১৪৪ ধারা জারি করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

(Visited 902 times, 1 visits today)