রাজবাড়ীতে অপহরণের শিকার হলো দুই ছাত্রী –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

265

রাজবাড়ীতে পৃথক ভাবে স্কুল ও কলেজে পড়–য়া দুই ছাত্রীকে অপহরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে এক ছাত্রীর মুক্তিপন বাবাদ দাবী করা হয়েছে ৫০ হাজার টাকা। এ দু’টি ঘটনার অভিযোগে গতকাল মঙ্গলবার সকালে রাজবাড়ী থানায় দু’টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। একটি মামলায় পুলিশ একজনকে গ্রেপ্তার করেছে।
অপহৃত স্কুল ছাত্রীর বাবা বলেন, তার মেয়ে (১৩) অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী। স্কুলে যাওয়া আসার পথে রাজবাড়ী জেলা সদরের আলীপুর ইউনিয়নের কল্যানপুর গ্রামের মৃত বধু মিজির রাজমিস্ত্রী ছেলে শুকুর মিজি (১৮) উত্তক্ত করতো। বিষয়টি তার মেয়ে তাদেরকে জানায়। তারা শুকুর মিজি এবং তার পরিবারের সদস্যদের বিষয়টি অবহিত করেন। এতে শুকুর মিজি ক্ষিপ্ত হয় এবং তার মেয়ের ক্ষতি করতে উঠে পরে লাগে। গত ১০ জুলাই রাত ২ টার দিকে তার মেয়ে প্রাকৃতিক ডাকে সারা দিতে ঘরের বাইরে আসতেই শুকুর মিজির নেতৃত্বে একদল দূর্বত্ত তার মুখ আটকে ধরে জোর পূর্বক অপহরণ করে নিয়ে যায়। এ ঘটনার পর নিকট স্বজনদের বাড়ীতে অনেক খোঁজা খুজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি। খোঁজা খুজির এক পর্যায়ে একটি মোবাইল ফোন থেকে তার ফোনে কল করে অজ্ঞাত পরিচয়ের এক ব্যক্তি মেয়েকে ফেরৎ দেয়া হবে না মর্মে হুমকী প্রদান করে। পরবর্তীতে আরেকটি ফোন থেকে কল করে মেয়ের মুক্তিপন বাবাদ ৫০ হাজার টাকা দাবী করা হয়।
রাজবাড়ী থানার এসআই খান বিল্লাল হোসেন বলেন, ওই ঘটনায় মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে রাজবাড়ী থানায় ৫ জনকে চিহ্নিত করে এবং অজ্ঞাত পরিচয়ের আরো ২/৩জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ মামলার ৩ নং আসামী খলিল মিজিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তার হওয়া খলিল মামলা সংক্রান্ত বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রদান করেছেন। সেই সাথে অপহৃত ছাত্রীকে উদ্ধার ও অন্যান্য আসামীদের গ্রেপ্তার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
অপর দিকে, রাজবাড়ী শহরের একটি সরকারী কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের অপর এক ছাত্রী (১৭) কে অপহরণের অভিযোগে আরেকটি মামলা দায়ের হয়েছে। মালায় বলা হয়েছে, কলেজ পড়–য়া ওই ছাত্রীকে গত ১৪ জুলাই সকালে কলেজে যাবার পথে মুখ আটকিয়ে মাইক্রেবাসে তুলে নিয়ে গিয়ে অপহরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে রাজবাড়ী থানায় আরেকটি অপহরণ মামলা দায়ের করেছে। মামলায় জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলার হলুদবাড়ীয়া গ্রামের ওহাব মোল্লার ছেলে রইচ মোল্লা (৩২) ও তার ভাই রতন মোল্লা (২৭) কে আসামী করা হয়েছে।
ওই ছাত্রীর বাবা বলেন, অপহরণের পর তার মেয়েকে জোড় পূর্বক অজ্ঞাত স্থানে আটকিয়ে রাখা হয়েছে। যে কারণে তিনি মেয়ের কোন সন্ধান এখনো পাননি। তাই তিনি রাজবাড়ীী থানায় মামলা দায়ের করেছেন।
এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও রাজবাড়ী থানার এসআই আবু হানিফা জানান, অপহৃত ছাত্রীকে উদ্ধার ও আসামীদের গ্রেপ্তার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

(Visited 243 times, 1 visits today)