রাজবাড়ীর স্কুল ছাত্র রিফাত হত্যা মামলার রায়, ২ জনের ফাসি ১ জনের যাবৎজীবন কারাদন্ড –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

76tled-1

রাজবাড়ী জেলা শহরের চাঞ্চল্যকর পঞ্চম শ্রেণীর স্কুল ছাত্র রিফাত হোসেনকে অপহরণের পর হত্যা এবং সাত দিন পর সেফটি ট্যাঙ্কী থেকে লাশ উদ্ধারের ঘটনার প্রায় তিন বছর পর বুধবার দুপুরে রাজবাড়ীর অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত রায় প্রদান করেছে। এতে ওই ঘটনার সাথে জরিত ২ আসামীকে ফাসি ও ১ জনের যাবৎ জীবন কারাদন্ডাদেশ প্রদান করেছে আদালত।
রাজবাড়ী সদর উপজেলার মিজানপুর ইউনিয়নের চরনারায়নপুর গ্রামের বাড়ী থেকে ২০১৩ সালের ৬ নভেম্বর দুপুরে “রাজবাড়ী কিন্ডার গার্টেন” স্কুলে প্রাইভেট পড়ার পর বাড়ী ফেরার পথে ওই বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র রিফাত হোসেনকে দূর্বত্তরা অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে অপহরণকারী মুক্তিপন বাবদ ১৫ লাখ টাকা রিফাতের বাবা মুক্তার মন্ডলের কাছে দাবী করে। তবে অপহরণের দিনই ঘাতকরা রিফাতকে ওষুধ খাইয়ে অচেতন করাসহ শ্বাসরোধে হত্যা করে। তার লাশ জেলা শহরের টিএন্ডটি পাড়ার একটি বাথরুমে ফেলে রাখে। পুলিশ ঘাতক রঞ্জন ওরফে রক্তিমকে গ্রেপ্তার করার পর তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী সাত দিন পর ওই বাথরুম থেকে রিফাতের লাশ উদ্ধার করে।
এ ঘটনার পর হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবীতে রাজবাড়ী জেলা শহর উত্তাল হয়ে ওঠে। হয় মানববন্ধন, বিক্ষোভ এবং ঘটে ঘাতক রক্তিমের বাড়ী পুড়িয়ে দেবার ঘটনা। যদিও এ হত্যার মামলার প্রধান আসামী ঘাতক রক্তিম, অপর ঘাতক রনি সেখ ও রাসেলকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে।
রাজবাড়ী থানায় ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে রিফাতের বাবা। তবে পুলিশ তদন্ত শেষে ওই তিন ঘাতককে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশীট প্রদান করে।
রাষ্ট্র পক্ষের এডঃ খন্দকার হাবিবুর রহমান বাচ্চু জানান, ওই তিন আসামীর উপস্থিতিতে রাজবাড়ীর অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ওসমান হায়দার চাঞ্চল্যকর রিফাত হত্যা মামলার রায় ঘোষনা করেন। আদালত মামলার প্রধান আসামী ঘাতক রক্তিম, ও রাসেলকে ফাসির রায় প্রদান করে। অপর আসামী ঘাতক রনি সেখকে যাবৎ জীবন কারাদন্ড প্রদান করে।
আর আদালতের এই রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন নিহত স্কুল ছাত্র রিফাতের মা। তিনি এ সময় দ্রুত এ রায় কার্যকর করার দাবী জানান।

(Visited 413 times, 1 visits today)