রাজবাড়ীর সাবেক ডিসি’র হয়রানী মূলক মামলা থেকে দুই সাংবাদিকের অব্যাহতি –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

6titled-1

রাজবাড়ীর সাবেক জেলা প্রশাসক এবং বর্তমানে অর্থ মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মোঃ রফিকুল ইসলাম খানের নির্দেশে দায়েরকৃত হয়রানী মূলক মামলা থেকে অব্যাহতি পেয়েছেন দৈনিক কালের কণ্ঠের রাজবাড়ী জেলা প্রতিনিধি জাহাঙ্গীর হোসেনসহ দুই সাংবাদিক। বৃহস্পতিবার রাজবাড়ীর ১নং আমলী আদালতের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবু হাসান খায়রুল্লাহ ওই মামলায় পুলিশের চুড়ান্ত রিপোর্ট গ্রহণ পূর্বক দুই সাংবাদিককে অব্যহতি দিয়ে মামলাটি নথিজাত করার আদেশ দেন। এ সময় আদালতে মামলার বাদী ও জেলা প্রশাসকের বাস ভবনের নিরাপত্তা প্রহরী মোঃ নজরুল ইসলাম সালাম নিজে উপস্থিত থেকে পুলিশ রিপোর্ট গ্রহণের আবেদন জানান।
জানাগেছে, একটি জাতীয় দৈনিকে “প্রশাসনের গুরুত্বপূর্ণ পদে বিএনপি, জামায়াত ও ফ্রিডম পার্টির অনুসারী একশ্রেণীর কর্মকর্তা” শিরোনামে একটি রিপোর্ট প্রকাশিত হয়। ওই রিপোর্টে একটি সংস্থার বরাত দিয়ে সর্বশেষ নিয়োগ দেয়া ২০ জেলা প্রশাসকসহ ডিসিদের ওপর একটি প্রতিবেদনের তথ্য দেয়া হয়েছে। ওই প্রতিবেদনে ছাত্রশিবির, ছাত্রদলের ক্যাডার ও এক সময়ের ফ্রিডম পার্টি করা ৬ ডিসির কথা বলা হয়েছে। এর মধ্যে, নবম ব্যাচের কর্মকর্তা রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোঃ রফিকুল ইসলাম খান বুয়েট ছাত্রশিবিরের সভাপতি ছিলেন বলে উল্লেখ করা হয়। বিষয়টি ছড়িয়ে পরলে তা ওই সময় টক অফ দ্যা টাউনে পরিণত হয়। সচেতন মহলের মুখে মুখে উঠে আসে শিবির নেতা তৎকালিন রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসকের নাম।
এ বিষয়ে জানতে গত বছরের ২৬ জুলাই জেলা প্রশাসকের বাস ভবন অফিসে যান দৈনিক কালের কণ্ঠের রাজবাড়ী জেলা প্রতিনিধি জাহাঙ্গীর হোসেন এবং স্থানীয় দৈনিক রাজবাড়ী কণ্ঠ পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার আল মামুন আরজু। সে সময় ডিসি রফিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের সাথে দেখা করতে না চাইলে দু’সাংবাদিকই ফিরে আসেন। পরবর্তীতে এ ঘটনাটিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে সাবেক জেলা প্রশাসক তার বাস ভবনের নিরাপত্তা প্রহরী মোঃ নজরুল ইসলাম সালাম দিয়ে দুই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে রাজবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করায়। মামলাটি তদন্ত শেষে তদন্তকারী কর্মকর্তা রাজবাড়ী থানার এসআই মামুন অর রশিদ আদালতে গত ১৯ জানুয়ারী আদালতে চুড়ান্ত রিপোর্ট দাখিল করেন।
বিজ্ঞ আদালত গতকাল মামলার বাদীর উপস্থিতিতে পুলিশের তদন্ত রিপোর্ট গ্রহণ পূর্বক দুই সাংবাদিককে অব্যহতি দিয়ে মামলাটি নথিজাত করার আদেশ দেন।
উল্লেখ্য, জেলা প্রশাসকের বাস ভবনে একটি হাউজ গার্ড নিয়োজিত থাকার পরও জোর পূর্বক বাস ভবনে প্রবেশের হয়রানী মূলক ওই মামলা দায়েরের ঘটনায় বিক্ষুব্দ রাজবাড়ীর সাংবাদিক সমাজ শহরে বিক্ষোভ মিছিল, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান ধর্মঘট পালন করে ডিসি রফিকুল ইসলামের অপসারণ দাবী করে। পরবর্তীতে ডিসি রফিকুল ইসলামকে রাজবাড়ী থেকে অর্থ মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব হিসেবে বদলী করা হয়। এ মামলা থেকে অব্যাহতি পাওয়ায় রাজবাড়ী প্রেসক্লাব, রাজবাড়ী জেলা টেলিভিশন সাংবাদিক সমিতিসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

(Visited 153 times, 1 visits today)