বালিয়াকান্দিতে স্ত্রী’র যৌতুক দাবীর মামলায় স্বামী শ্রীঘরে –

সোহেল রানা, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

DS000CN0032

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার নারুয়া ইউনিয়নের ছোট হিজলী গ্রামের স্ত্রীর দায়েরকৃত যৌতুক দাবী ও মারপিটের মামলায় পুলিশ স্বামীকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠিয়েছে। আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছে।
মামলা সুত্রে জানাগেছে, উপজেলার বহরপুর ইউনিয়নের তেঁতুলিয়া গ্রামের হাচেন আলী মল্লিকের মেয়ে সাজেদা বেগম (৩৩) সাথে আনুমানিক ২১ বছর পুর্বে নারুয়া ইউনিয়নের ছোট হিজলী গ্রামের কেছমত মল্লিকের ছেলে ইউনুছ আলী মল্লিকের বিবাহ হয়। বিবাহের পরে দাম্পত্য জীবনে ছেলে সাজিদ (১৮) ও মেয়ে বীথি (১৬) জন্ম হয়। ছেলে-মেয়ে জন্মের পর থেকেই স্বামী ও শ্বশুর বাড়ীর লোকজন সাজেদার সাথে খারাপ আচরণ করতে থাকে। পরবর্তীতে ইউনুছ আলী মল্লিক প্রথম স্ত্রী সাজেদা বেগমের অনুমতি না নিয়ে পুনরায় আরেকটি বিয়ে করে। প্রথম স্ত্রী সাজেদাকে তার বাড়ী হতে ১লক্ষ টাকা যৌতুক আনার জন্য চাপ সৃষ্টি করে। না আনলে তাড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। কিছুদিন পর দ্বিতীয় স্ত্রী সীমাকে নিয়ে ঢাকায় চলে যায়। তার পর হতে সাজেদা বিভিন্ন স্থানে ঝিয়ের কাজ করে সংসার চালাতে থাকে। গত ৫ এপ্রিল দ্বিতীয় স্ত্রীসহ বাড়ীতে এসে যৌতুকের ১লক্ষ টাকা এনে দিতে চাপ সৃষ্টি করতে থাকে। যৌতুক দিতে অস্বীকার করায় ছোট হিজলী গ্রামের কেছমত মল্লিকের ছেলে ইউনুছ আলী মল্লিক (৩৮), ইউনুছের ২য় স্ত্রী সীমা বেগম (৪০), কেছমত মল্লিকের ছেলে শুকুর আলী মল্লিক (৪৫), হান্নান মল্লিক (৪২), আবুল মল্লিকের ছেলে মোসলেম মল্লিক (৩০) গত ৫এপ্রিল সকাল ১০টার দিকে সাজেদা বেগমকে মারপিট করে বাড়ী থেকে তাড়িয়ে দেয়। তাকে বালিয়াকান্দি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সুস্থ হয়ে ছেলে-মেয়েকে নিয়ে পিতার বাড়ীতে মানবেতর জীবন যাপন করছে। এব্যাপারে সাজেদা বেগম বাদী হয়ে গত ২৬ এপ্রিল বালিয়াকান্দি থানায় মামলা দায়ের করে। বালিয়াকান্দি থানার মামলা নং-৬, ধারা- নারী নির্যাতন আইন ২০০০ (সংশোধনী-২০০৩) এর ১১(গ)/৩০। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস,আই অংকুর কুমার অভিযান চালিয়ে মামলার প্রধান আসামী ইউনুছ আলী মল্লিককে গ্রেফতার করে। তাকে মঙ্গলবার তাকে রাজবাড়ী আদালতে প্রেরন করা হলে তার জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠায়।

(Visited 48 times, 1 visits today)