এমপি কাজী কেরামত আলী ও তার কন্যা চৈতীর ব্যতিক্রমী উদ্যোগ, লকডাউন হওয়া দৌলতদিয়া যৌনপল্লীর বাসিন্দারা পেলো খাবার –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

সারা দেশে করোনা ভাইরাস আতঙ্কের মধ্যে বসবাস করছে সাধারল মানুষ। আর এ ভাইরাসের বিস্তার রোধে দেশের সর্ববৃহৎ দৌলতদিয়া পতিতা পল্লীকে লক ডাউন করে প্রশাসন। এ কারণে সেখানে অবস্থানরত চার সহস্রাধিক যৌনকর্মী মানবেতর জীবন-যাপন শুরু করেছেন। এমনি দূর্বিসহ অবস্থার উত্তরণ ঘটাতে সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ও রাজবাড়ী-১ আসনের এমপি কাজী কেরামত আলীর সহযোগিতায় তার একমাত্র কন্যা কানিজ ফাতেমা চৈতী যৌনকর্মীদের আহারের ব্যবস্থা করেছেন। তিনি নিজ অর্থে ২ হাজার ৬ শত কেজি আটা, এক হাজার ৩ শত কেজি আলু এবং এক হাজার ৩ শত লিটার সয়াবিন তেল ক্রয় করেন। যা পল্লীর এক হাজার ৩ শত জন যৌনকর্মীকে শনিবার প্রদান করা হয়।
সে সময় উপস্থিত ছিলেন, গোয়ালন্দ উপজেলা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মোঃ আসাদুজ্জামান আসাদ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুবায়েত হাসান শিপলু, দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুর রহমান, জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম, দোলতদিয়া ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল গনি, ২ নং ওয়ার্ড সদস্য মোঃ আশরাফুল ইসলাম, দৌলতদিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ন-সম্পাদক মোঃ আজিজুল ইসলাম মন্ডল আরিয়ান প্রমূখ।
এমপি কাজী কেরামত আলী কন্যা কানিজ ফাতেমা চৈতীর জানান, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের লক্ষে পতিতা পল্লী লকডাউন করা হয়েছে। যে কারণে সেখানকার যৌনকর্মীরা মানবেতর জীবন যাপন করছেন। আর সে কারণে তার বাবা ও তিনি ব্যক্তিগত উদ্যোগে যৌনকর্মীদের মুখে আহার তুলে দেবার চেষ্টা করেছেন। তিনি যৌনকর্মীদের জনপ্রতি ২ কেজি আটা, ১ কেজি আলু এবং এক লিটার সয়াবিন তেল প্রদান করেছেন।

ফেসবুক থেকে এ ভিডিওটি দেখা না গেলে TV Rajbari লিখে ইউটিউবে সার্জ দিলেও দেখা যাবে।

(Visited 768 times, 1 visits today)