অনন্য দৃষ্টান্ত : রাত জেগে রাজবাড়ীর লাইলী নাহার তৈরী করলেন মাস্ক ! –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

করোনা ভাইরাস নিয়ে আতংকের শেষ নেই। তবে সচেতনতাই পারে এ ভাইরাস থেকে মানুষকে বাঁচাতে। এমনি চিন্তা নিয়ে হতদরিদ্র শ্রমিকদের মাঝে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিলাইজার তৈরীর উদ্যোগ নেন মেয়ে ও তার সমমনা কিছু মানুষ। বাড়ীর মধ্যে এ চিত্র দেখে ঘরে নিজেকে স্থির রাখতে পারেননি ৬৯ বছর বয়সী লাইলী নাহার। বয়োজ্যেষ্ঠ এই মানুষটি হ্যান্ড সেলাই মেশিন নিয়ে বসে পরেন এবং রাত ১০টা থেকে ভোর ৪টা পর্যন্ত টানা তিনি তৈরৗ করে একশত মাস্ক। আজ মঙ্গলবার ওই মাস্ক গুলো জেলা শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে শ্রমিজীবিদের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে।
রাজবাড়ী জেলা শহরের ভবানীপুর ফুড অফিস এলাকার বাসিন্দা শায়লা তাবাসসুম নেওয়াজ বলেন, করোনা থেকে শ্রমজীবি ও হতদরিদ্র মানুষদের সুরক্ষা দিতে তারা কয়েকজন স্ব-উদ্যোগে নিজেদের ঘরের মধ্যেই মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিলাইজার তৈরীর কাজ শুরু করেন। বিষয়টা দেখে তার মা এগিয়ে আসেন এবং হ্যান্ড সেলাইমেশিন বের করে নিয়ে আসেন। তিনি প্রায় সারা রাত জেগে কাপড় দিয়ে ১০০টি মাস্ক তৈরী করেছেন। তার মা জেলা শহরের শেরে বাংলা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক এবং বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাজবাড়ী জেলা শাখার সভাপতিও। যে কারণে তিনি সর্বদা মানুষের পাশে থাকতে চান এবং তাদের জন্য কাজ কররে চান। আর এই কারণেই তিনিও খানিকটা মায়ের চিন্তা চেতনায় বেড়ে উঠেছেন। তিনি আরো বলেন, বাজারে স্যাভলন, ডেটল ও হ্যান্ড স্যানিলাইজার পাওয়া যাচ্ছে না। আর এ থেকে উত্তোরণে জন্য তারা নিজস্ব পদ্ধতীতে রেকট্রিফাইস্প্রিট সংগ্রহ করে আরো কিছু দ্রব্যের ব্যবহারে হ্যান্ড স্যানিলাইজার তৈরী করছেন। আরো কিছু বোতল হাতে পেলেই হ্যান্ড স্যানিলাইজার গুলো বিতরণ করা হবে।
বৃদ্ধা লাইলী নাহার বলেন, করোনা ভাইরাসের এই বিপদ থেকে বাঁচতে হলে সচেতনতার কোন বিকল্প নেই। এমন অবস্থার আগে কখনোই এ দেশে সৃষ্টি হয়নি। ফলে বেশি বেশি প্রচার প্রচারনা এবং সকল শ্রেণী পেশার মানুষের সাধ্যমত হতদরিদ্রদের পাশে দাঁড়ানো প্রয়োজন। তিনি যেটা করেছেন, তা দায়িত্ব বোধ থেকেই করেছেন। ভবিষ্যতে আরো করবেন।

(Visited 511 times, 1 visits today)