গোয়ালন্দে বাকপ্রতিবন্ধী কিশোরী হলো ধর্ষণের শিকার –

আজু সিকদার, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :
রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে মামা বাড়ীতে বেড়াতে এসে ১৬ বছর বয়সী বাক প্রতিবন্ধী এক কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে ওই কিশোরীর মা বাদী হয়ে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় মামলা দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত ধর্ষকের নাম ফেরদৌস শেখ (২৫)। সে গোয়ালন্দ পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের দেওয়ান পাড়া হানির ডাঙ্গার কুদ্দুস শেখের ছেলে।
মামলার বাদী জানান, প্রায় ১০ বছর আগে তার স্বামীর সাথে ছাড়াছাড়ি হয়। আমার একমাত্র মেয়েটার কথা অনেকটা অস্পষ্ট। তবে তিনি তার মেয়ের কথা স্পষ্ট বুঝতে পারেন। তাকে নিয়ে সে ঢাকায় থেকে গার্মেন্টসে কাজ করে। কয়েকদিন আগে তার ভাই তার মেয়েকে বেড়ানোর জন্য গোয়ালন্দে তাদের বাড়ীতে নিয়ে আসে। গত ২৯ ফেব্রুয়ারি বেলা সাড়ে ৩টার দিকে স্থানীয় লম্পট ফেরদৌস শেখ মোবাইলে আমার সাথে কথা বলিয়ে দেয়ার জন্য আমার মেয়েকে ইশারায় বুঝিয়ে পাশ্ববর্তী সিরাজ মোল্লার আখক্ষেতের দিকে নিয়ে যায়। সেখানে সে আমার মেয়েকে জোর করে ধর্ষণ করে এবং এ ঘটনা বললে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয়।
গত ৪ মার্চ তারিখে আমার মা মোবাইলে আমাকে জানান, যে তারা ২৯ ফেব্রুয়ারি থেকে আমার মেয়েকে বাড়ী পাচ্ছে না। এরপর আমি ছুটি নিয়ে ৭ মার্চ গোয়ালন্দে এসে অনেক খোজাখুজির পর গোয়ালন্দের কাটাখালী এলাকার ওর বাবার বাড়ীতে পাই। ঘটনার পর সে কাউকে না বলে ওই বাড়ীতে চলে যায়। সেখানে সে ইশারায় অস্পষ্টভাবে ধর্ষণের ঘটনা ও ধর্ষকের নাম পরিচয় আমাকে বলে। আমি তার কথা বুঝতে পারি। এরপর বাদী হয়ে অভিযুক্ত ফেরদৌসের বিরুদ্ধে গত রবিবার গোয়ালন্দ ঘাট থানায় মামলা করি।
সোমবার দুপুরে সরেজমিন এলাকায় গেলে প্রতিবেশী কয়েকজন জানান, ফেরদৌস একজন লম্পট চরিত্রের ছেলে। এ পর্যন্ত সে ৩-৪টা বিয়ে করেছে। কিন্তু একটা বউও তার সাথে থাকে না। ধর্ষণের ঘটনা আমরা শুনেছি এবং তারপর থেকে সে গা ঢাকা দিয়েছে।
এ বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোয়ালন্দ ঘাট থানার এসআই বদিয়ার রহমান সোমবার দুপুরে জানান, আমি ভিকটিম কিশোরীকে ডাক্তারী পরিক্ষা করানোর জন্য রাজবাড়ীর সদর হাসপাতালে নিয়ে এসেছি। পরীক্ষার পর ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে তার জবানবন্দী রেকর্ড করা হবে। পাশাপাশি অভিযুক্ত ধর্ষককে গ্রেফতারের জন্য আমরা চেষ্টা চালাচ্ছি।

(Visited 295 times, 1 visits today)