সকলকে কাঁদিয়ে চলে গেলেন রাজবাড়ীর তারুণ্যের প্রতীক রিন্টু ভাই –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম : 

চলে গেলেন রাজবাড়ীর তারুণ্যের প্রতীক ও রাজবাড়ী ডিবেট এসোসিয়েশনের সভাপতি, বৃক্ষরোপনসহ নানা রকম কার্যক্রমসহ পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান সহযাত্রা’র আহবায়ক ও সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) রাজবাড়ী জেলা শাখার অন্যতম সদস্য মেজবা উল করিম রিন্টু (সকলের প্রিয় রিন্টু ভাই) (৪৫) আজ রবিবার সকাল ১০টার দিকে নিজ বাড়ীতে ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্নানিল্লাহে অইন্না ইলাইহে রাজেউন)। মৃত্যুকালে তিনি ১০ ভাই, ৩ বোনসহ অসংখ্য স্বজন ও গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। তার অকাল মৃত্যুতে রাজবাড়ীর সবচেয়ে জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোটাল “রাজবাড়ী বার্তা ডট কম”-এর পক্ষ থেকে তার আতœার শান্তি কমনা করার পাশাপাশি গভীর শোক প্রকাশ করা হয়েছে।
তার বড় ভাই ও একুশে পদক প্রাপ্ত চিত্রশিল্পী অধ্যাপক মনসুর উল করিম ঠান্ডু বলেন, রিন্টু দীর্ঘ দিন ধরে ক্লোন ক্যান্সারে ভুগছিলেন। তিনি প্রতিবেশি দেশ ভারত এবং দেশের প্রতিষ্ঠিত হসপিটালের চিকিৎসকদের ব্যবস্থাপত্রে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হচ্ছি। গত ১৫ দিন ধরে তার শাররীক অবস্থার চরম অবনতি হয়। অবশেষে আজ সকালে সকলকে কাঁদিয়ে সে মৃত্যুর কোলে ঢলে পরে। আজ বিকাল ৫টায় রাজবাড়ী সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। পরে তাকে রাজবাড়ী সরকারী আদর্শ মহিলা কলেজের সামনে অবস্থিত নিজবাড়ীর পারিবারিক কবরস্থানে সমাহিত করা হবে।


রাজবাড়ী ডিবেট এসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক ফারুক উদ্দিন বলেন, রিন্টু ভাই ছিলেন, তারুণ্যের প্রতীক একজন সদালাপী, উদার মানুষিকতা সম্পূর্ণ ব্যক্তি। লালন ভক্ত রিন্টু ভাই ছেলে বেলা থেকেই ছিলেন বৃক্ষ প্রেমী। জেলা শহরের বিভিন্ন সরকারী প্রতিষ্ঠান এবং স্কুল ও কলেজ গুলোতে রোপন করেছেন তিনি হাজারো বৃক্ষ। একই সাথে তিনি বজ্রপাত থেকে মুক্তি পেতে জেলার বিভিন্ন সড়কের পাশে রোপন করেছেন হাজার হাজার তাল বীজ ও গাছ। তিনি রাজবাড়ীর শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিতর্ক প্রতিযোগিতা ও উৎসব করেছেন।

ফেসবুক থেকে এ ভিডিওটি দেখা না গেলে TV Rajbari লিখে ইউটিউবে সার্জ দিলেও দেখা যাবে।

(Visited 2,136 times, 1 visits today)