রাজবাড়ী শহরে সিসি টিভি : এসপি’র উদ্যোগের প্রথম সুফল পেলো মিষ্টি কিনতে আসা বর –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

নিজের বিয়ের মিষ্টি কিনতে এসে টাকা ও মূল্যবান কাগজপত্র ভর্তি মানিব্যাগ গেছে প্রধান সড়কে পরে। যদিও ব্যাগ মালিক বুঝতেও পারেন নি, পকেটে নেই তার মানিব্যাগ। তবে রাজবাড়ীর জেলা পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান পিপিএম-এর পক্ষে থেকে স্থাপনকরা সিসি ক্যামেরার ভিডিও দেখে ব্যাগ মালিক সনাক্তের পর গোয়েন্দা শাখার সদস্যদের ফোনে হুস ফেরে তার। পকেটে হাত দিয়ে দেখেন, সত্যিই নেই তার পকেটে মানিব্যাগ। পরে ব্যাগ মালিককে ডেকে আনা হয় রাজবাড়ীর পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে। সেই সাথে পুলিশ সুপার তার হাতে তুলে দেন টাকা ভর্তি মানিব্যাগটি।
গোয়ালন্দ উপজেলার ছোটভাকলা ইউনিয়নের কেউটিল গ্রামের বিমল চন্দ্র মন্ডলের ছেলে ঢাকাস্থ কর কমিশনারের কার্যালয়ের অফিস সহকারী কাম মুদ্রাক্ষরিক বিদ্যুৎ চন্দ্র মন্ডল। তিনি নিজের বিয়ে তাই বাড়িতে এসেছেন। আজ সোমবার দুপুরে পূর্বের অর্ডার করা মিষ্টি নিতে মোটর সাইকেলে চেপে রাজবাড়ী শহরে এসেছেন। অসাবধানতাবশত অনেক টাকা পয়সা ও মূল্যবান কাগজপত্রসহ জেলা জজের বাংলোর সামনে এলে মানিব্যাগটি রাস্তায় পড়ে যায়। এসময় রাজবাড়ী ডিবির ওসি মোঃ ওমর শরীফ ও ইন্সপেক্টর মোঃ জিয়ারুল ইসলামসহ ডিবির টিম সদ্য উদ্বোধনকৃত সিসিটিভির মনিটর করছিলেন। তখন ব্যাগটি রাস্তায় পড়ে যাবার দৃশ্যটি ক্যামেরাবন্দি হয়ে নজরে আসে। সাথে সাথেই ডিবির সদস্যদের নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছলে ব্যাগটি হাতে এসে পৌঁছে ওসি ডিবি মোঃ ওমর শরীফের । ব্যাগটিসহ টিম ডিবি ফিরে আসেন অফিসে। চেষ্টা চলে ব্যাগের মালিক অন্বেষণের। রেঞ্জ ডিআইজি ঢাকা মোঃ হাবিবুর রহমান বিপিএম (বার) পিপিএম (বার) কর্তৃক সদ্য উদ্বোধনকৃত সিসিটিভি ক্যামেরা ভালো করে বিশ্লেষণ চললো। ওসি ডিবি মোঃ ওমর শরীফ ও ইন্সপেক্টর মোঃ জিয়ারুল ইসলামের নেতৃত্বে কিছুক্ষণ ভিডিও ফুটেজ বিশ্লেষণ করে সনাক্ত হলো ব্যাগের মালিক। দেখা গেল একটি মোটর সাইকেলে চড়ে দুজন আরোহী দ্রæত বেগে শহরের দিকে যেতে। ডিসি অফিস বরাবর শিল্পকলা চত্বরে বসানো ক্যামেরার অত্যন্ত স্পষ্ট করে দেখার পর একজনকে চেনা গেল। ফোন নম্বর সংগ্রহ করে ফোন দেয়া হলো। মানিব্যাগের কথা বলতেই তিনি পকেট চেক করেই চমকে উঠেন। আমন্ত্রণ জানানো হয় ডিবি অফিসে আসতে। পাঁচ মিনিটের মধ্যেই ডিবি অফিসে ব্যাগের মালিক হাজির। এরপর পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান পিপিএম (বার) এর হাত দিয়ে মালিকের হাতে মুল্যবান কাগজপত্র ও টাকা পয়সা সহ ব্যাগটি বুঝিয়ে দেয়া হয়।
ডিবি ইন্সপেক্টর মোঃ জিয়ারুল ইসলাম বলেন, ইতিমধ্যেই সিসি টিভির সুফল বইতে শুরু করেছে রাজবাড়ী বাসী। হারিয়ে যাওয়া টাকা ও মানিব্যাগ ৫ মিনিটেই মালিকের হাতে তুলে দিতে পেরেছি। এটা পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান পিপিএম বার এর উদ্যোগে সদ্য লাগানো সিসিটিভি ক্যামেরার প্রথম সাফল্য।

(Visited 946 times, 1 visits today)