এসপির নির্দেশনায় রাজবাড়ীর চাঞ্চল্যকর দুই হাত কর্তন মামলার দু’আসামি গ্রেপ্তার –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

পূর্ব বিরোধের জের ধরে রাজবাড়ীতে মর্মান্তিকভাবে শাহিন খান (২৫) নামে এক যুবকের দুই হাত কুপিয়ে কেটে বিচ্ছিন্ন করেছিলো দূর্বৃত্তরা। চাঞ্চল্যকর ওই ঘটনায় প্রায় সাড়ে ৫ মাস পর রাজবাড়ী থানা পুলিশের সদস্যরা পৃথক অভিযান চালিয়ে দুই জন আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলো, রাজবাড়ী সদর উপজেলার আলীপুর ইউনিয়নের কল্যানপুর গ্রামের আমিন হক রারীর ছেলে আহসান হাবিব ওরফে লুলু (৩০) ও একই গ্রামের সুরুজ লাঠিয়ালের ছেলে শাহ্ আলম (২৮)।
আলোচিত এই ঘটনার আসামি গ্রেপ্তারের পর আজ সোমবার দুপুরে রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান পিপিএম তার সম্মেলন কক্ষে প্রেস ব্রিফিং করেন।ব্রিফিং-এ উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ সালাহ উদ্দিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফজলুল করিম, সহকারী পুলিশ সুপার (পাংশা সার্কেল) লাবীব আব্দুল্লাহ, রাজবাড়ী থানার ওসি স্বপন কুমার মজুমদার, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হিরণ কুমার বিশ্বাসসহ জেলা পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তারা। ওই ব্রিফিংয়ে তিনি বলেন, গত বছরের ৪ আগষ্ট বিকালে রাজবাড়ী সদর উপজেলার আলীপুর ইউনিয়নের কল্যানপুর কবরস্থানের পাশের বালুর মাঠের মধ্যে স্থানীয় হাসেম খানের ছেলে শহিন খানকে ধরে নিয়ে গিয়ে তার বন্ধুরা পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে দুই হাত চাপাটি দিয়ে কেটে বিচ্ছিন্ন করে। ওই ঘটনায় শাহিনের বাবা বাদী হয়ে রাজবাড়ী থানায় ৫ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করে। পুলিশ মামলার ৩ নং আসামি শাহিন রারীকে ঘটনার পর পরই গ্রেপ্তার করে। তবে অন্য চার আসামী ছিলো আত্নগোপনে। তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার ও একাধিক অভিযান চালিয়ে গত রবিবার রাতে মামলার ৪ নং আসামি আহসান হাবিব ওরফে লুলুকে সদর উপজেলার সুলতানপুর এবং ৫ নং আসামি শাহ্ আলমকে রাজধানী ঢাকার সভার এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে। তবে প্রধান আসামি ইসমাইল গাজী ও ইদ্রিস পাটোয়ারী এখনো রয়েছে আত্নগোপনে।


এদিকে, হাত কর্তনকারী লুলু ও শাহ্ আলমকে দেখতে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে স্ব-পরিবারে ছুটে আসে শাহিন খান। সে তার শিশু একমাত্র ছেলেকে দেখিয়ে বলে, ওর ভবিষ্যত ওরা নষ্ট করে দিছে, তাকে করেছে পঙ্গু। এর চেয়ে ও যদি তাকে হত্যা করতো তাহলেও দূর্বিসহ জীবন থেকে থেকে মুক্তি পেতো। তিনি পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তার এবং গ্রেপ্তার হওয়া আসামিদের সর্বচ্চ শাস্তিরও দাবী জানান।

(Visited 342 times, 1 visits today)