অর্থাভাবে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে পারছে না পাংশার প্রণতি জোয়াদ্দার –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

অর্থাভাবে কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারছে না মেধাবী ছাত্রী প্রণতি জোয়াদ্দার। তিনি এবার রাজবাড়ী সরকারী আদর্শ মহিলা কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেছেন।
প্রণতি জোয়াদ্দার জানায়, রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার পাট্টা ইউনিয়নের তারিনীনগর গ্রামের দরিদ্র কৃষক বাবা জ্যোতিস জোয়াদ্দার মারা গেছে ২০১৫ সালে। মা জোসনা জোয়াদ্দার তাকেসহ ভাই হরিদাস কুমার জোয়াদ্দার ও বোন পূর্ণিমা জোয়াদ্দারকে নিয়ে কোন রকমে সংসার পরিচালনা করছে। সে ভাই বোনদের মধ্যে সবার ছোট। তার বড় ভাই-বোন দু’জনই মাস্টার্স শেষ করে চাকুরী না পেয়ে বাড়ীতে বসে আছে। দারিদ্রতার কারণে এসএসসি পাস করার পর তারও পড়াশোনা বন্ধ হবার উপক্রম হয়েছিলো। তবে রাজবাড়ী সরকারী আদর্শ মহিলা কলেজের শিক্ষকদের সহযোগিতার কারণে সে এইচএসসি পাস করতে পেরেছে। এর পর কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় সে অংশ গ্রহণ করে। গত বুধবার সে জানতে পারে অর্থনীতিতে ভর্তির সুযোগ পেয়েছে। তবে সে ভর্তির সুযোগ পেলেও এখন ভর্তি হতে পারছে না। কারণ ভর্তি ও আনুসাঙ্গীক বই-খাতা ও কাপর-চোপর কিনতে প্রায় ১৬ হাজার টাকা প্রয়োজন তার। এখন অত টাকা জোগার করার কোন সমর্থই নেই তার বিধবা মায়ের।
রাজবাড়ী সরকারী আদর্শ মহিলা কলেজের সহকারী অধ্যাপক আব্দুর রশিদ মন্ডল জানান, বাবার রেখে যাওয়া সামান্য জমি চাষাবাদ করে সংসার পরিচালনা করেন প্রণতির মা। যে কারণে সে এইচএসসিতে ভর্তি হতেও পারছিলো না। পরে তারা তাদের কলেজ এবং কলেজ হোষ্টেলে বিনা পয়সায় ভর্তি ও থাকার ব্যবস্থা করে দেন। যে কারণে সে এবার এইচএসসি পাস করতে সমর্থ হয় এবং কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিরও সুযোগ পায়। তবে সে ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারছে অর্থাভাবে। যদিও তারা কলেজ থেকে দুই হাজার টাকা উত্তোলন করেছেন। ফলে বাকি টাকার সংস্থান নিয়ে তারাও এখন চিন্তিত।

(Visited 450 times, 1 visits today)