গোয়ালন্দে এক সপ্তাহে ১ হত্যাসহ ৭ মরদেহ উদ্ধার –

শামীম শেখ, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দঘাট থানা পুলিশ আগষ্ট মাসের ২১ থেকে ২৬ তারিখ পর্যন্ত এক সপ্তাহে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে ৭টি মরদেহ উদ্ধার করে। এর মধ্যে সুজাত নামের এক যুবককে সরাসরি কুপিয়ে হত্যা ছাড়াও অপর লাশগুলোর ব্যাপারে পুলিশের সন্দেহ রয়েছে। ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে রাজবাড়ীর মর্গে।
জানা যায়, চলতি আগষ্ট মাসে ২১ তারিখে ছোট ভাকলা ইউনিয়নে প্রিয়া আক্তার নামে দশম শ্রেণীর একমাদ্রাসা ছাত্রী প্রেম ঘটিত কারনে গলায় ওড়না জড়িয়ে গাছে ঝুলে আতœহত্যার পর পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে। একই দিন উপজেলার দৌলতদিয়া ৬নং ফেরিঘাট থেকে ফায়ার সার্ভিসের সহায়তায় অজ্ঞাত এক মহিলার অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার হয়। ২০ তারিখে উজানচর ইউনিয়নের চর মহিদাপুর গ্রামের ইমদাদুল নামে এক কৃষক পদ্মায় মাছ ধরার দোয়ারী পাততে গিয়ে নিখোঁজ হওয়ার একদিন পর তার লাশ উদ্ধার হয়। ২৩ তারিখে দৌলতদিয়াঘাট যৌনপল্লী সংলগ্ন ভাই ভাই বোডিং থেকে এক কৃষি শ্রমিকের অজ্ঞাত লাশ উদ্ধার হয়। ২৬ তারিখে একই এলাকার গাউছিয়া বোডিং থেকে নওগাঁ জেলার ইমন প্রামানিকের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ২৪ তারিখে গোয়ালন্দ বাজার বাসষ্ট্যান্ড পদ্মার মোড়ে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে অজ্ঞাত এক মহিলা সড়ক দূর্ঘনায় নিহত হয়। সর্বশেষ ২৬ তারিখ বিকেলে এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ইমন নামে এক যুবক তার বন্ধু অপর যুবক সুজাতকে ধারালো চাকু দিয়ে কুপিয়ে নির্মম ভাবে হত্যা করে। লাশগুলো ময়না তদন্তের জন্য রাজবাড়ী মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ সকল ব্যাপারে গোয়ালন্দ থানায় পৃথক মামলা হয়েছে।
এ ব্যাপারে গোয়ালন্দঘাট থানার ওসি রবিউল ইসলাম জানান, প্রতিটি লাশের ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া শুরু হয়েছে। সুজাত নামের যুবককে ছুুরিকাঘাত করে হত্যার বিষয়টি ছিল ব্যক্তিগত দ্বন্দ্বের ফল। ঘাতক ইমন গ্রেফতার হয়েছে। জনমনে কোন আতঙ্ক নেই।

(Visited 125 times, 1 visits today)