ছাত্রকে জখমের ঘটনায় তদন্ত শুরু, টিটিসি কর্তৃপক্ষ উল্টো শাস্তি দিচ্ছে ছাত্রের বাবাকে –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম : 

রাজবাড়ী কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি) তে ক্লাস রুমের মধ্যে নবম শ্রেণীর ছাত্রকে জখমের ঘটনার প্রায় দুই সপ্তাহ পর আজ মঙ্গলবার তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মহিউদ্দিনকে ওই তদন্তভার প্রদান করা হয়েছে। এদিকে, ওই ঘটনার পর থেকে আহত ছাত্রের বাবাকে টিটিসি কর্তৃপক্ষ তার নির্দিষ্ট কাজ করতে না দিয়ে প্রতিষ্ঠানের তৃতীয় তলার অফিস রুমে বসিয়ে রাখা’র অভিযোগ পাওয়া গেছে।
তদন্ত কমিটির দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মহিউদ্দিন জানান, আহত শিক্ষার্থীর বাবার দায়ের করা অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে তদন্ত ভার প্রদান করে পত্র প্রদান করেছেন, রাজবাড়ীর ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক আশেক হাসান। তিনি ইতোমধ্যেই তদন্ত শুরু করেছেন।
জানাগেছে, বাবার সাথে বিরোধের জের ধরে গত ৮ আগষ্ট দুপুরে রাজবাড়ী সদর উপজেলার আাদীপুর এলাকায় অবস্থিত রাজবাড়ী কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি) ক্লাস রুমের মধ্যে মামুনুল ইসলাম নামে নবম শ্রেণীর এক ছাত্রকে মেরে জখম করে প্রতিষ্ঠানের ইলেক্ট্রিক ড্রেডের শিক্ষক আব্দুর রব ও তার সহযোগিরা। তারা আহত ছাত্রকে হাসপাতালে নেয়ারও নেননি কোন উদ্যোগ। ফলে প্রতিষ্ঠানের অন্যান্য ছাত্ররা তাকে উদ্ধার করে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা সেবা প্রদান করে। নির্মম এ ঘটনাটি ইতোমধ্যে জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় আলোচনাও করা হয়েছে। ওই সভার সভাপতি জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম ঘটনাটি খতিয়ে দেখার জন্য তদন্ত কমিটি গঠনের কথা বলেন। ওই ঘটনার পর আহত ছাত্রের বাবা ও টিটিসি’র সহকারী ড্রাইভিং গেষ্ট ট্রেইনার জহুরুল ইসলাম বিষয়টি প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ ফাতেমা নার্গিসকে জানানোর জন্য যান। তবে অধ্যক্ষ গত দুই সপ্তাহ অতিবাহিত হলেও তাকে তার রুমে প্রবেশের অনুমতি দেন নি। বরং তাকে তার নিজস্ব কাজে অংশ নিতে না দিয়ে তৃতীয় তলার অফিস রুমে বসে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। সেই সাথে প্রতিষ্ঠানের অন্য কোন কর্মকর্তাও কর্মচারীকে তার সাথে কথা বলতেও নিষেধ করেছেন বলে জহুরুল ইসলাম এ প্রতিনিধিকে জানিয়েছেন।

(Visited 205 times, 1 visits today)