দৌলতদিয়া ঘাটে কর্মস্থল গামী যাত্রীদের উপচে পড়া ভীর-

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

ঈদ ও সাপ্তাহিক ছুটি শেষ দিন হওয়াতে কর্মস্থল গামী যাত্রীদের উপচে পড়া ভীর লক্ষ্য করা গেছে দেশের ২১ জেলার গুরুত্বপূর্ণ প্রবেশদ্বার রাজবাড়ীর দৌলতদিয়ায়।
শনিবার দুপুরে দৌলতদিয়া লঞ্চ ঘাটে এ চিত্র দেখাগেছে। এ সময় ঘাট থেকে মুহুর্তের মধ্যে লঞ্চ গুলো ভর্তি হয়ে পাটুরিয়ার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাচ্ছে। এদিকে সময় বাড়ার সাথে সাথে দৌলতদিয়া প্রান্তের সড়কে দীর্ঘ হচ্ছে যাত্রীবাহি বাস ও ছোট গাড়ির সারি। এছাড়া ফেরি ঘাটেও যাত্রীদের চাপ রয়েছে।
দৌলতদিয়া ঘাট কর্তৃপক্ষ সুত্রে জানাগেছে, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুট দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার যানবাহন ও যাত্রী নদী পারাপার হলেও ঈদের আগে ও পড়ে এর চাপ বেড়ে যায় কয়েকগুন। এ ধারাবাহিকতায় আজ ঈদের ৬ষ্ঠ দিন ও ছুটির শেষ দিন হওয়াতে দৌলতদিয়া প্রান্তে যানবাহন ও যাত্রীদের চাপ বেড়েছে । ফলে কর্মস্থল গামী যাত্রীদের চাপ দেখাগেছে লঞ্চ ও ফেরি ঘাটে। তবে বেলা বাড়ার সাথে সাথে এবং ঈদ ও সাপ্তাহিক ছুটি শেষ হওয়ার কারণে যানবাহন ও যাত্রীদের চাপ বৃদ্ধি পাবে বলে ধারনা করা হচ্ছে। বর্তমানে এ নৗেরুটে ছোট বড় ১৯ ফেরি ও ৩৪ টি লঞ্চ চলাচল করছে।
এদিকে যাত্রী ও যানবাহনের চালকরা বলছেন, সড়কে দীর্ঘ অপেক্ষা ও কোন ভোগান্তি ছাড়া ঈদ শেষ করে দৌলতদিয়া প্রান্ত দিয়ে কর্মস্থলে ফিরছেন। তবে দুরপাল্লার বাস চালকরো বেলনে,তারা পুরােরোস্তায় ভেেগান্তরি মধ্য দেিয় দৌলতদিয়া পর্যন্ত এসে পৌছেছেন। সময় বেশি লাগায় দৌলতদিয়া পৌছাতে তাদের এবং যাত্রীদের ভোগান্তি হচ্ছে বেশি।
বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মোঃ আবু আব্দুল্লাহ রনি বলেন, আজ শনিবার ছুটির শেষ দিন হওয়াতে কর্মস্থল গামী যানবাহন ও যাত্রীরা স্বাভাবিক ভাবে নদী পার হচ্ছে। এরুটে পর্যাপ্ত সংখ্যক ফেরি চলাচল করায় যাত্রী ও যানবাহন পারাপারে কোন ভোগান্তি হচ্ছে না। তবে সময় বাড়ার সাথে কর্মস্থলগামী যাত্রী ও যানবাহনের চাপ আরো বাড়তে পারে। বর্তমানে এরুটে ছোট বড় ২০টি ফেরি চলাচল করছে।

(Visited 24 times, 1 visits today)