গোয়ালন্দে বিকল্প সড়কে গরুর গাড়ী উল্টে খাদে, ৭ গরু জখম –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে গরুবাহী একটি নসিমন উল্টে গিয়ে গভীর খাদে পড়ে যায়। এতে করে নসিমনে থাকা ৭টি গরু গুরুতর জখম হয়। একটি গরু মরে যাওয়ার উপক্রম হলে এলাকার লোকজন দ্রুত উদ্ধারের পর তা জবাই করে। ঘটনাটি ঘটে দৌলতদিয়া ঘাটে পৌছানোর বিকল্প সড়কের উপজেলার দক্ষিণ উজানচর নতুন পাড়া এলাকায়।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ফরিদপুরের ঈশান গোপালপুর ইউনিয়নের আনন্দ বাজার এলাকার কয়েকজন খামারী ৭টি ষাড় গরু নিয়ে বিক্রির উদ্দেশ্যে গতকাল শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেন। ফেরিতে গরু পার করার ক্ষেত্রে দৌলতদিয়া ঘাটে খানিকটা যানজট থাকায় গরু ব্যবসায়ীরা গোয়ালন্দ বাজার হয়ে পূর্ব উজানচর-চর দৌলতদিয়া হাট দিয়ে ঘাটে পৌছানোর সিদ্ধান্ত নেন। গোয়ালন্দ বাজার মাল্লাপট্টি ব্রীজ পার হয়ে নতুন পাড়া এলাকায় পৌছালে সেখানে ভাঙা ও সরু রাস্তায় পড়ে নসিমনটি পাশের গভীর খাদে পড়ে যায়। এ সময় গরুর ব্যবসায়ীরা ও এলাকার লোকজন দ্রুত রশি কেটে ৬টি গরুকে উদ্ধার করতে সক্ষম হন। তবে গরুগুলোর বিভিন্ন জায়গায় কেটে-ছিলে রক্তাক্ত জখম হয়। একটি গরু ডুবে গেলে লোকজন রশি কেটে সেটিকেও উদ্ধার করে। গরুটি মরে যাওয়ার উপক্রম হলে সেখানেই জবাই করা হয়।
স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুল মান্নান, জয়নাল সরদার, আমেদ আলী, মর্জিনা বেগমসহ কয়েকজন জানান, মৃতপ্রায় গরুটিকে জবাই করে এলাকার কয়েকজন মাংস ভাগ করে নেন। গরুর মূল্য বাবদ বেপারীকে দেয়া হয় ৩০ হাজার টাকা। যদিও গরুটির সুস্থ অবস্থায় নুন্যতম মূল্য ছিল ৭০/৮০ হাজার টাকা। অপর ৬টি গরু গাজী কসাই নামের একজন নাম মাত্র মূল্যে কিনে নেন। কাঁদতে কাঁদতে বাড়ী যান বেপারীরা। এখানকার রাস্তাটি ঈদের আগে সংস্কার করলে এ দুর্ঘটনা ঘটতো না।
গতকাল দুপুরে সরেজমিন দেখা যায়, খালের পাশে লিটনের বাড়ীতে জবাই করা গরুটির মাংস বন্টনের কাজ চলছে। ভাঙা রাস্তায় বালুর বস্তা ও বাঁশের খুটি পুতে মেরামতের কাজ চলছে। সে অবস্থার মধ্যেই ঘাটের উদ্দেশ্যে ছুটে যাচ্ছে শতশত ছোট গাড়ী।
এ সময় স্থানীয় ইউপি সদস্য নিখিল চন্দ্র রায় জানান, রাস্তাটি এলজিইডি’র। উপজেলার মাসিক সমন্বয় সভায় বার বার আমাদের ইউপি চেয়ারম্যান সংস্কারের জন্য বললেও কোন কাজ হয়নি। এখন জরুরী ভিত্তিতে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ হতে সাময়িকভাবে মেরামত করা হচ্ছে।
সেখানে নিয়োজিত গোয়ালন্দ ঘাট থানার এসআই শহর আলী জানান, দৌলতদিয়া ঘাটে যেতে মহাসড়কে যানবাহনের অতিরিক্ত চাপ থাকায় ছোট ছোট গাড়ীগুলোকে বিকল্প এ সড়ক দিয়ে ঘাটে পাঠানো হচ্ছে। এ সড়ক দিয়ে ঘাট থেকে অসংখ্য ঈদের ঘরমুখো মানুষ, পশু ও মালামাল বহন করা হচ্ছে। সড়কটির গুরুত্ব বিবেচনায় জরুরী মেরামত ও আগামীতে প্রশস্থ করা উচিত।

(Visited 113 times, 1 visits today)