উঠান বৈঠকে গ্রামীণ মানুষের সুখ-দুঃখের কথা শুনলেন ডিসি –

সোহেল রানা, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

“ শেখ হাসিনার উপহার, আমার বাড়ী আমার খামার-বদলাবে দিন তোমার আমার” এ শ্লোগানকে সামনে রেখে বৃষ্টিতে ভিজে, কর্দমাক্ত পথ মাড়িয়ে মঙ্গলবার রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার বহরপুরে আমার বাড়ী, আমার খামার প্রকল্পের বহরপুর চন্দনা গ্রাম উন্নয়ন সমিতির কার্যক্রম পরিদর্শন ও উপকারভোগী সদস্যদের সাথে উঠান বৈঠক করে তাদের সুখ-দুঃখের কথা শুনলেন রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম।
বহরপুর ইউনিয়নের অবস্থিত পাটের গোডাউনের পাশে লাকি বেগমের বাড়ির উঠানে আয়োজিত উঠান বৈঠকে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম বৃষ্টির মধ্যেও দীর্ঘ সময় অবস্থান করে আমার বাড়ি আমার খামার প্রকল্পের উপকারভোগীদের কথা শুনেন এবং সঞ্চয় বৃদ্ধিসহ সমিতি থেকে ঋণ নিয়ে আত্মকর্মসংস্থানমূলক কাজ করে স্বাবলম্বী হওয়ার জন্য বিভিন্ন দিকনির্দেশনা প্রদান করেন। এ সময় বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইশরাত জাহান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহ মোঃ সজীব,উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা মোঃ আব্দুর রশিদ, বালিয়াকান্দি পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক বিধান কুমার দাস, পরিদর্শক মিনি রানী বিশ্বাসসহ আমার বাড়ি আমার খামার ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
উঠান বৈঠকে সমিতির ম্যানেজার লাকি বেগম বলেন, বহরপুর চন্দনা গ্রাম উন্নয়ন সমিতিতে সদস্য ৪০ জন, তার মধ্যে মহিলা ৩২জন এবং পুরুষ ৮ জন। সমিতির সভাপতি মিলি বিশ্বাসের সভাপতিত্বে তারা নিয়মিত সভা করেন। উপকারভোগী সদস্যদের সঞ্চয়ের পরিমাণ ৮৬ হাজার টাকা। তারা উৎসাহ বোনাস পেয়েছেন ৮৬ হাজার টাকা। এ সমিতির সদস্যগণ প্রশিক্ষনোত্তর ঋণ পেয়েছেন ১ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা। বর্তমানে তহবিলের পরিমাণ ২ লক্ষ ৯৭ হাজার টাকা। সমিতির সদস্যদের মধ্যে ঋণ বিতরণ করা হয়েছে ১ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা। ঋণ আদায় হয়েছে ২৫ হাজার ৯ শত ২০ টাকা। সমিতি থেকে ঋণ গ্রহণ করে ১৮ জন ইতোমধ্যে বিভিন্ন আত্মকর্মসংস্থানমূলক কার্যক্রম গ্রহণ করে স্বাবলম্বী হয়েছেন। দারিদ্র্য বিমোচনে প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার প্রকল্পসমূহের মধ্যে অন্যতম আমার বাড়ি আমার খামার প্রকল্পের মাধ্যমে তারা আত্মনির্ভরশীলতা ও স্বাবলম্বী হওয়ার পথ খুঁজে পেয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।
উল্লেখ্য, বালিয়াকান্দি উপজেলার ৭ টি ইউনিয়নে আমার বাড়ি আমার খামার ও পল্লী সঞ্চয় প্রকল্পের আওতায় ১ শত ৮৮ টি সমিতির সদস্য সংখ্যা ৮ হাজার ৯ শত ৪৫ জন। ইতোমধ্যে ৬২৫ জন আত্মকর্মসংস্থানমূলক বিভিন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন। বালিয়াকান্দি উপজেলায় উপকারভোগী সদস্যদের সঞ্চয়ের পরিমাণ ৩৬৩.৯৪ লক্ষ টাকা। প্রশিক্ষণোত্তর ঋণ সহায়তা তহবিলের পরিমাণ ৪৪৪.৭২ লক্ষ টাকা। সমিতিতে কল্যাণ অনুদান প্রদান করা হয়েছে ২৯৩.৬৩ লক্ষ টাকা। তহবিলের পরিমাণ ১১০২.২৯ লক্ষ টাকা। এ যাবত ঋণ বিতরণ করা হয়েছে ১৭৯৫.৬১ লক্ষ টাকা। ঋণ আদায়ের পরিমাণ ১২০৩.৯৮ লক্ষ টাকা।

(Visited 36 times, 1 visits today)