পীরে পীরে টক্কর ॥ এক পীর গ্রেপ্তার –

জাহাঙ্গীর হোসেন, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম : 

রাজবাড়ীতে দুই পীরের মাঝে চলে আসা বিরোধ প্রকাশ্য রুপ নিয়েছে। যার অংশ হিসেবে এক পীর বিরুদ্ধে আরেক পীরকে মারপিট ও টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ করেছে। ওই অভিযোগে পীর ইসলাম খান বাদী হয়ে গত শুক্রবার সকালে রাজবাড়ী থানায় মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ আবুল হাসান বাবুল (৫০) নামে এক পীরকে গ্রেপ্তার করেছে। রাজবাড়ী বার্তা ডট কম । 
স্থানীয়রা জানান, রাজবাড়ী সদর উপজেলার পাঁচুরিয়া ইউনিয়নের ব্রক্ষণদিয়া গ্রামে ১৯৬২ সালে “তরিকতে মোহাম্মদিয়া” নামে জনৈক মাওলানা আব্দুল মান্নান খান নিজে পীর হিসেবে দরবার শরীর গড়ে তোলেন। সময়ের বিবর্তনে প্রসিদ্ধ হয়ে ওঠে ওই দরবার শরীফ। ১৯৯৮ সালে আব্দুল মান্নান খান ইন্তেকাল করেন। সে সময় আব্দুল মান্নান খানের বড় ছেলে আব্দুর রশিদ খান ওই দরবার শরীফের পীর হিসেবে গদিতে বসেন। ২০১৫ সালে আব্দুর রশিদ খান মারা যান এবং গদিতে সে সময় আব্দুর রশিদ খানের ছেলে ইসলাম খান বসেন। এরই মাঝে ২০১৬ সালে দীর্ঘ ১৭ বছর ঢাকায় বসবাস শেষে পৈত্রিক ভিটায় ফিরে আসেন পীর মাওলানা আব্দুল মান্নান খানের ছোট ছেলে আবুল হাসান বাবুল। তিনি তার মেজো ভাই হোসেন খানকে সাথে নিয়ে বাবার দরবার শরীফ নিজেদের হেফাজতে নেবার চেষ্টায় লিপ্ত হন। তবে তাদের ভাতিজা পীর ইসলাম খানের অবস্থান মজবুত হওয়ায় তিনি তা দখনে নিতে ব্যর্থ হন। যে কারণে একই স্থানে তিনি সত্যের দরবার শরীফ নামে আরেকটা দরবার শরীফ স্থাপন করেন এবং নিজেকে এ দরবার শরীফের পীর হিসেবে ঘোষনা করেন। পৈত্রিক জমিতে পাশাপাশি দুটি দরবার শরীফ বিদ্যমান থাকায় ভক্ত ও মুরদানরা বিভ্রান্ত হতে থাকে। সেই সাথে পীর ইসলাম খানের ও পীর আবুল হাসান বাবুল গ্রুপের মধ্যে জমিজমা ভাগাভাগি নিয়ে উত্তেজনা বাড়ে। যার অংশ হিসেবে ২০১৬ সালে ওই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মজিবর রহমান রতন মৌখিক ভাবে এবং ২০১৭ সালে বর্তমান চেয়ারম্যান কাজী আলমগীর হোসেন লিখিত ভাবে শালিশ মিমাংশা করে দেন। ওই শালিশ মিমাংশার পর অল্প সময়ের জন্য পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলেও তারা পুনরায় উত্তেজনা বৃদ্ধি পায়। রাজবাড়ী বার্তা ডট কম । 
পীর ইসলাম খান জানান, তিনি এলাকায় শিক্ষার হার বৃদ্ধির লক্ষে মনিং স্টার কিন্ডার গার্টেন স্থাপন করেছেন। সেই সাথে “আব্দুল মান্নান রুহুল উল্লা হাফেজিয়া মাদ্রাসা” স্থাপনের উদ্যোগ নেন। গত ৫ এপ্রিল ইউপি চেয়ারম্যান কাজী আলমগীর হোসেন ও ইউপি মেম্বার কাজী আব্দুল মজিদসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে ৩০ বছর ধরে তার ভোগ দখলে থাকা পৈত্রিক জমিতে “আব্দুল মান্নান রুহুল উল্লা হাফেজিয়া মাদ্রাসা”-এর নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়। পর দিন ৬ এপ্রিল সকাল ৮টার দিকে তার দুই চাচা পীর আবুল হাসান বাবুল ও হোসেন খান ওই জমিতে প্রবেশ করে মাদ্রাসার নির্মাণকাজ বন্ধ করার পাশাপাশি ভাংচুর চালিয়ে ৫০ হাজার টাকার ক্ষতি করে। তিনি (পীর ইসলাম খান) কাজ বন্ধের করার কারণ জানতে চাইতেই ওই দুই চাচা তাকে বেধড়ক মারপিট করার পাশাপাশি গলায় গামছা পেঁচিয়ে শ^াসরোধে হত্যার চেষ্টা চালায় ও তার পকেটে থাকা ২৫ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। সে সময় তার চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে তাকে রক্ষা করে। রাজবাড়ী বার্তা ডট কম । 
এদিকে, গতকাল দুপুরে রাজবাড়ী থানা হাজতে আটক থাকা পীর আবুল হাসান বাবুল বলেন, সুকৌশলে মাদ্রাসা নির্মাণের নামে তার ভাতিজা পীর ইসলাম খান জোরপূর্বক তাদের পৈত্রিক জমি দখল করার পায়তারায় লিপ্ত হয়েছে। তিনি ওই জমিতে ঘর নির্মাণ না করার জন্য বলেছেন। তবে তিনি কাউকে মারপিট অথবা টাকা ছিনিয়ে নেয়ার কোন ঘটনা ঘটাননি। রাজবাড়ী বার্তা ডট কম । 
এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও রাজবাড়ী থানার এসআই আরিফুজ্জামান জানান, মামলার আসামি হিসেবে আবুল হাসান বাবুলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্য আসামিকেও গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

(Visited 438 times, 1 visits today)